এ বছর এমির আয়োজনে অংশ নিয়েছিল ২৩ দেশের অনুষ্ঠান। ১৫টি ক্যাটাগরিতে ৬০টি মনোনয়ন দেওয়া হয়েছিল। এর মধ্যে সর্বোচ্চ সাতটি পুরস্কার পেয়েছে ব্রিটেন। ফ্রান্স জিতেছে দুটি। এ ছাড়া পুরস্কার পেয়েছে নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ কোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া।
ড্রামা সিরিজ বিভাগে সেরা হয়েছে ভিজিল (যুক্তরাজ্য)। কমেডি সিরিজ বিভাগে সেরা হয়েছে সেক্স এডুকেশন (যুক্তরাজ্য)। দ্য ম্যাড ওমেনস বল–এ (ফ্রান্স) অভিনয় করে সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন ফ্রান্সের লু দে লাগে।

আরভিন ওয়েলশস ক্রাইম–এর (যুক্তরাজ্য) গল্প স্কুলপড়ুয়া এক মেয়ের নিখোঁজ হওয়া নিয়ে। তাকে হন্যে হয়ে খুঁজতে থাকা গোয়েন্দা চরিত্রে অভিনয় করে সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন ডুগ্রে স্কট। উল্লেখযোগ্য অন্যান্য শাখার মধ্যে আর্টস প্রোগ্রামিংয়ে সেরা হয়েছে ফ্রেডি মার্কারি: দ্য ফাইনাল অ্যাক্ট।

তথ্যচিত্রে ইরাকস লস্ট জেনারেশন (ফ্রান্স), স্পোর্টস তথ্যচিত্রে সেরা হয়েছে কুইন অব স্পিড (যুক্তরাজ্য)। কিড লাইভ অ্যাকশনে সেরা হয়েছে কাবাম (নেদারল্যান্ডস)। শর্ট সিরিজে সেরা হয়েছে রুরাঙ্গি (নিউজিল্যান্ড)। মিনি সিরিজ বিভাগে হেল্প (যুক্তরাজ্য)। কিড অ্যানিমেশন বিভাগে সেরা হয়েছে শন দ্য শিপ: ফ্লাইট বিফোর ক্রিসমাস (যুক্তরাজ্য), টেলিনভেলা শাখায় সেরা হয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার দ্য কিংস’স অ্যাফেকশন।
নিউইয়র্ক হিলটন মিডটাউন হোটেলে বসেছিল এবারের আসর। উপস্থাপনার দায়িত্বে ছিলেন পেন অ্যান্ড টেলারস জুটির পেন জিলেট।