বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

সিনেমাটির সঙ্গে জড়িয়ে আছে অতনু ঘোষের অনেক স্মৃতি। সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে কিন্তু সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় নেই। এই সময়ে একসঙ্গে সিনেমাটি দেখার কথা ছিল। এই অভিনেতার শূন্যতা এখনো তাঁকে নাড়া দেয়। শিল্পকলার প্রায় সব শাখায় প্রতিভার অধিকারী এমন অভিনেতা কালেভদ্রে জন্মে। প্রয়াত গুণী এই অভিনেতা কলকাতার বাংলা চলচ্চিত্রকে প্রাণ ভরে দিয়েছিলেন সবটুকু। অভিনয়কে পৌঁছে দিয়েছেন অনন্য উচ্চতায়।
রবিবার, বিনি সুতোয়, ময়ূরাক্ষীসহ বেশ কিছু সিনেমার পরীক্ষিত নির্মাতা অতনু ঘোষের কাছে জানতে চাই ৭২ ঘণ্টা সিনেমার অভিনব ধরনটি নিয়ে। এই গল্পটা কেন এভাবেই বলার প্রয়োজন মনে করলেন? তিনি বলেন, ‘এই অ্যান্থলজি ফিল্মের ছয়টি গল্পের প্রতিটিতেই ৭২ ঘণ্টার ব্যবধানে দুজন অপরিচিত ব্যক্তির সাক্ষাৎ হয়। গল্পের পরিস্থিতি এবং প্রেক্ষাপট দুটোই আলাদা থাকে। কিন্তু একটি জায়গায় সব কটি চরিত্রে মিল। সবার মধ্যে জীবন সম্পর্কে যেমন ভিন্ন দৃষ্টি রয়েছে, তেমনি উপলব্ধি ও নৈতিকতা একই। আশা–হতাশার বেড়াজালে আটকে পড়া মানুষের কথা বলে তারা। জীবনকে নতুন করে দেখার সুযোগ দেয়।’

default-image

চরকি আগেই জানান দিয়েছিল, নিজেদের গল্পের বাইরেও দর্শকদের আলাদা স্বাদের আন্তর্জাতিক মানের গল্প উপহার দিতে চায় তারা। ইতিমধ্যে বিদেশি কনটেন্ট প্রচার করে তারা সফলতাও পেয়েছে। নিয়মিত এ ধারা অব্যাহত রাখতে চায় তারা। চরকির প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা রেদওয়ান রনি বলেন, ‘সব সময় বৈচিত্র্যময় কনটেন্ট নিয়ে আসার প্রতিশ্রুতি নিয়েই কাজ করে যাচ্ছে চরকি। এরই ধারাবাহিকতায় এবার প্রথমবারের মতো পশ্চিমবঙ্গের চলচ্চিত্র মুক্তি দিতে যাচ্ছে। উপমহাদেশের প্রখ্যাত অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় অভিনীত ৭২ ঘণ্টা তাঁর প্রয়াণ মাসেই বিশ্বব্যাপী মুক্তি দিচ্ছি তাঁকে স্মরণ করে।’ আরও জানান, প্রতি মাসে একটি করে নতুন সিনেমা দেখানো অব্যাহত রাখবে চরকি।

default-image

১৫ নভেম্বর সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের প্রথম প্রয়াণ দিবসে তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সিনেমাটির অফিশিয়াল পোস্টার প্রকাশ করে চরকি। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, আবির চট্টোপাধ্যায় ছাড়াও ৭২ ঘণ্টায় অভিনয় করেছেন পশ্চিমবঙ্গের প্রথম সারির একাধিক তারকাশিল্পী। আছেন ইন্দ্রানী হালদার, অনন্যা চট্টোপাধ্যায়, ঋত্বিক চক্রবর্তী, নীনা চক্রবর্তী, সুদীপ্তা চক্রবর্তী, সুদীপ্তা বন্দ্যোপাধ্যায়, রণদীপ বসু, রিয়া বণিক, পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়, খরাজ মুখোপাধ্যায় প্রমুখ।

default-image
ওটিটি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন