এই ঘোষণার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শুরু হয়েছে নতুন আলোচনা—তাঁদের বিচ্ছেদের খবর কি তবে মিথ্যা ছিল? অনেক ভক্ত প্রশ্ন তুলেছেন, পাকিস্তানি নায়িকার সঙ্গে শোয়েব মালিকের প্রেমের গল্প কি সাজানো ছিল? এত দিন যা হলো, তা কি সানিয়া-শোয়েব দম্পতির নতুন শোর প্রচারণার কৌশল? গত কয়েক দিনে তাঁদের সম্পর্ক নিয়ে নানা ধরনের খবর প্রকাশিত হলেও এ নিয়ে দুই তারকার কেউই মুখ খোলেননি।

তবে সানিয়া-শোয়েবের কথিত বিচ্ছেদ নিয়ে নতুন খবর দিয়েছে পাকিস্তানি গণমাধ্যমগুলো। দুই তারকার একটি ঘনিষ্ঠ সূত্রের বরাতে পাকিস্তানের বিভিন্ন গণমাধ্যম জানিয়েছে, সানিয়া-শোয়েবের কিছু আইনি জটিলতা রয়েছে। সেসব জটিলতা মেটানোর পর তাঁরা আনুষ্ঠানিকভাবে বিবাহবিচ্ছেদের ঘোষণা দিতে পারেন। এ ছাড়া বিভিন্ন ব্যবসায়িক চুক্তি থাকার কারণে এখনই বিচ্ছেদের বিষয়ে মুখ খুলছেন না তাঁরা।

২০১০ সালে ভারতীয় টেনিস তারকা সানিয়া মির্জা ও পাকিস্তানি ক্রিকেটার শোয়েব মালিক বিয়ে করেন। ২০১৮ সালে তাঁদের পুত্রসন্তানের জন্ম হয়। এক সপ্তাহ আগে দুবাইয়ে একসঙ্গে তাঁরা সন্তানের জন্মদিন উদ্‌যাপন করেছিলেন।
কিছুদিন আগে পাকিস্তানি একটি সাময়িকীর ফটোশুটে অন্তরঙ্গ ভূমিকায় দেখা গেছে শোয়েব মালিক ও পাকিস্তানি নায়িকা–গায়িকা আয়েশা ওমরকে। এরপরই তাঁদের প্রেমের গুঞ্জনের খবর এসেছে গণমাধ্যমে।