নন্দন, বিউটি ও পাপ্পু
নন্দন, বিউটি ও পাপ্পুছবি: সংগৃহীত

ঢাকার তিন হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা চলছে চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত তরুণ গায়িকা বিউটি খান এবং দুই যন্ত্রশিল্পী নন্দন ও পাপ্পুকে। এর মধ্যে বিউটির অবস্থার উন্নতি–অবনতি কোনোটাই হয়নি। গিটারবাদক পাপ্পুকে মহাখালীর একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। তাঁর ফুসফুসে গতকাল একটি অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। তবে পুরোপুরি শঙ্কামুক্ত নয়। কি–বোর্ডিস্ট নন্দনের অবস্থা মোটামুটি ভালো। তাঁকে মগবাজারের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে। দু-এক দিনের মধ্যে তিনি বাসায় ফিরতে পারেন। তিনজনের সর্বশেষ অবস্থা জানিয়েছে তাঁদের পরিবার ও বন্ধুরা।

default-image

বিউটি খানের স্বামী রাজীব খান জানালেন, ঢাকায় আনার পর থেকে তাঁর শারীরিক অবস্থার কোনো উন্নতি–অবনতি হয়নি। রক্তের কয়েক ধরনের টেস্ট এবং ইসিজিও করা হয়েছে। এখনো কোনো প্রতিবেদন হাতে পাননি। পাওয়ার পর জানতে পারবেন কোন পদ্ধতিতে চিকিৎসাসেবা দেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
default-image

সর্বশেষ অবস্থা রাজীব বললেন, বিউটির ডান পা, ডান হাত ও বাঁ কাঁধে ফ্র্যাকচার হয়েছে। মুখে খুব আঘাত পেয়েছে। ওপরের ঠোঁট কেটে গেছে। চারটা দাঁতও ভেঙে গেছে। চট্টগ্রাম থেকে চিকিৎসকেরা বলেছেন, বিউটির হাত-পা আর কাঁধে দ্রুত অস্ত্রোপচার করতে হবে। তাই ঢাকায় নিয়ে এসেছি। এখানকার চিকিৎসকেরা পরীক্ষা–নিরীক্ষা করেছেন। পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। সব রিপোর্ট হাতে পেলেই চিকিৎসা দেওয়া শুরু হবে।

টঙ্গীর চেরাগ আলী এলাকায় স্বামীকে নিয়ে থাকেন তরুণ গায়িকা বিউটি খান। সাত বছর আগে রাজীব খানের সঙ্গে তিনি বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। গত শনিবার ভোরে কক্সবাজারে যাওয়ার পথে চট্টগ্রামের মিরসরাই এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান সংগীতাঙ্গনের দুই পরিচিত বাদ্যযন্ত্রী হানিফ আহমেদ ও পার্থ গুহ। এই দুর্ঘটনায় মারাত্মক আহত হন মাইক্রোবাসটিতে থাকা তরুণ গায়িকা বিউটি খান। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে ওই দিন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দেওয়া হয়।

default-image

কক্সবাজারগামী সেই গাড়িতে আরও ছিলেন গিটারবাদক রাহাত পাপ্পু আর কি-বোর্ডিস্ট নন্দন। তাঁদের দুজনকে মিরসরাইয়ের স্থানীয়ে একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। কাঙ্ক্ষিত চিকিৎসাসেবা না পাওয়ায় সেদিনই তাঁদের ঢাকায় নিয়ে আসা হয়। তাঁরা সবাই মিলে একটি মাইক্রোবাসে করে কক্সবাজারে যাচ্ছিলেন কনসার্ট করতে। এই দলে ছিলেন বেজ গিটারিস্ট রাহাত।

পাপ্পু ও নন্দনের সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে তিনি আজ সোমবার বিকেলে প্রথম আলোকে বললেন, ‘পাপ্পুর একটি অপারেশন হয়েছে। এই অপারেশনের পর শারীরিক অবস্থা কিছুটা ভালো, তবে মোটেও শঙ্কামুক্ত নয়। আরেকটি অপারেশন লাগতে পারে বলেও জানিয়েছেন চিকিৎসক। নন্দনের অবস্থা মোটামুটি ভালো। যেভাবে আছে, দু-এক দিনের মধ্যে বাসায় ফিরতে পারবে। তবে আমরা যাঁরা মাইক্রোবাসে ছিলাম, সবাই মাথাসহ শরীরের নানা অংশে আঘাত পেয়েছি। কমবেশি ব্যথা আছে।’

বিজ্ঞাপন
গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন