নিজের পায়ে নিজে কুড়াল মারার গল্পগুলো তুলে ধরতে চায় ‘সোনার বাংলা সার্কাস’

হাঁটি হাঁটি পা পা করে দুই পেরিয়ে তিনে পা দিয়েছে গানের দল ‘সোনার বাংলা সার্কাস’
হাঁটি হাঁটি পা পা করে দুই পেরিয়ে তিনে পা দিয়েছে গানের দল ‘সোনার বাংলা সার্কাস’সংগৃহীত
বিজ্ঞাপন

‘ভয়ংকর রকমের সুন্দর। মাথা ঘুরে গেছে। ২০২০ সালের এত সব হতাশার ভেতর সোনার বাংলা সার্কাস আমাদের সবচেয়ে বড় পাওয়া। বাংলা ব্যান্ড মিউজিকের এক অন্য ধারা সৃষ্টি করার জন্যই সোনার বাংলা সার্কাসের আবির্ভাব। আপনাদের জন্য ভালোবাসা।’

ট্রল, মিমের এই যুগে এ রকম শত মন্তব্যের দেখা মিলল ‘সোনার বাংলা সার্কাসে’র লাইভ সার্কাসের নিচে। প্রতিটি মন্তব্যে ঝরে পড়েছে এই ব্যান্ডের গানের প্রতি শ্রোতাদের ভালোবাসা। একজন তো লিখেছেন, অসহ্য ২০২০ সালকে নাকি এই গানের দলের গানগুলো সহনীয় করে তুলেছে। হাঁটি হাঁটি পা পা করে ব্যান্ডটির বয়স দুই পেরিয়ে তিনে পা দিয়েছে। এর মধ্যে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে সুখবর দিল এই গানের দল। আসছে তাদের প্রথম অ্যালবাম। নাম ‘হায়েনা এক্সপ্রেস’।

default-image
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

হায়েনার মতো এগিয়ে চলা মানবসভ্যতার নানা দিক নিয়ে বাঁধা ৯টি গান নিয়ে এই অ্যালবাম: ‘এপিটাফ’, ‘মৃত্যু উৎপাদন কারখানা’, ‘অন্ধ দেয়াল’, ‘হায়েনা এক্সপ্রেস’, ‘সূর্যের অন্ধকার’, ‘পারফিউমের ফেলে দেওয়া বোতল’, ‘আত্মহত্যার গান’, ‘আমার নাম অসুখ ও ক্রমশ’।

কথা ছিল, মার্চে তারা টিএসসির মাঠে কনসার্ট করবে। সেখানেই আনুষ্ঠানিকভাবে অ্যালবামের ঘোষণা দেবে। কিন্তু করোনাকাল তা আর হতে দেয়নি। তাই অনিশ্চিত আগামী সামনে রেখে অনলাইনেই শুরু হয়েছে এই লাইভ কনসার্ট, নাম ‘লাইভ সার্কাস’। ১১ সেপ্টেম্বর মুক্তি পেয়েছে লাইভ সার্কাসের প্রথম পর্ব।

default-image
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
‘আমরা মানবসভ্যতার যাত্রায় মানুষের নিজের পায়ে নিজে কুড়াল মারার গল্পগুলো তুলে ধরতে চাই। “হায়েনা এক্সপ্রেস” থেকে “এপিটাফ”—সব কটি গানের মোটিফ এটাই। মানুষ নিজেদের আর পৃথিবীর ধ্বংসলীলায় মেতেছে। কেবল অধঃপতন আর নিঃশেষের খেলায় মেতেছে।’
প্রবর রিপন, ভোকাল, সোনার বাংলা সার্কাস

প্রবর রিপন এই গানের দলের গীতিকার, ভোকাল ও গিটারিস্ট। ফোনের ওপাশে তিনি ও তাঁরা তখন পরের গান ‘এপিটাফে’-এর লাইভ ভিডিওর প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এত সব ব্যস্ততার মধ্যেই বললেন, ‘আমরা মানবসভ্যতার যাত্রায় মানুষের নিজের পায়ে নিজে কুড়াল মারার গল্পগুলো তুলে ধরতে চাই। “হায়েনা এক্সপ্রেস” থেকে “এপিটাফ”—সব কটি গানের মোটিফ এটাই। মানুষ নিজেদের আর পৃথিবীর ধ্বংসলীলায় মেতেছে। কেবল অধঃপতন আর নিঃশেষের খেলায় মেতেছে।’

শিল্পী প্রবর রিপন আরও জানান, তাঁদের কাছে ভক্ত-শ্রোতাদের একটা কনসার্ট পাওনা ছিল। লাইভ কনসার্টের মতো করেই এক টেকে তাই একেকটা ভিডিও আপলোড করছেন। প্রতি সপ্তাহে একটি করে গানের লাইভ ভিডিও নিয়ে দর্শক-শ্রোতাদের কাছে হাজির হবেন তাঁরা।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সোনার বাংলা সার্কাসের ইউটিউব চ্যানেলে প্রতিটি গানের নিচে শ্রোতারা তাঁদের উচ্ছ্বাস জানিয়েছেন। জানিয়েছেন, চোখ বন্ধ করে গান শুনেই তাঁরা সবটা দেখতে পাচ্ছেন। এই দলের পাঁচ সদস্য হলেন প্রবর রিপন (ভোকাল ও গিটারিস্ট), পাণ্ডুরাঙ্গা ব্লুমবার্গ (গিটারিস্ট), এনামুল হাসান (ড্রামার), শাকিল হক (বেজ গিটার) ও সাদ চৌধুরী (কি-বোর্ড)।

default-image
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন