বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সুমনার গাওয়া গানটির কথা লিখেছেন আহমেদ ইউসুফ সাবের, সুরকার ও সংগীত পরিচালক ইমন সাহা। গতকাল গানটির রেকর্ডিং হয়। সুমনা বলেন, ‘সিনেমায় গান করা যেকোনো শিল্পীর জন্য স্বপ্নের মতো। আমি খুব কম সময়ে সেই স্বপ্নের দেখা পেয়েছি।’

প্রথমবার সিনেমায় গাওয়ার সুযোগ পেয়ে শিল্পী কুমার বিশ্বজিতের প্রতি কৃতজ্ঞ সুমনা। তিনি বলেন, ‘প্রতিটি কণ্ঠযোদ্ধারই স্বপ্নের জায়গা প্লেব্যাক। আমাকে সেই সুযোগ তৈরি করে দিয়েছেন শ্রদ্ধেয় কুমার বিশ্বজিৎ স্যার। আমি কিছুদিন আগে স্যারের সুরে, লিটন অধিকারী রিন্টু স্যারের কথা ও কিশোর দাসের কম্পোজিশনে একটি গানে কণ্ঠ দিই। ওই গানের কিছু কাজ এখনো চলছে। সেই গানটিই আমার টার্নিং পয়েন্ট বলে মনে করি। কুমার বিশ্বজিৎ স্যার আমার প্রতি আস্থা রেখে, আমাকে একটা সুযোগ তৈরি করে দিয়েছেন, আর ইমন সাহা ভাইয়া আমাকে প্লেব্যাকের মতো এত বড় একটা সুযোগ দিলেন।’

এ গান করতে সুমনার হয়েছে নতুন এক অভিজ্ঞতা। সিনেমায় গানটিতে ঠোঁট মেলাবে একজন শিশু। ঠিক যেন শিশুকণ্ঠেই গানটি করতে হয়েছে সুমনাকে। সুরকার ও সংগীত পরিচালক ইমন সাহা ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আমেরিকা সময় রাত দুইটায় কুমার বিশ্বজিৎ কাকু টেক্সট করলেন, “কাকু জেগে আছিস?” সঙ্গে সঙ্গেই কল করলাম। বললেন, “তোকে একটা ভয়েজ পাঠাচ্ছি, শুনে দেখতো কেমন লাগে?” শুনলাম। চমৎকার, ফ্রেশ একটা টোন। বললেন, “মেয়েটার নাম সুমনা, ২০১৭ চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ বিজয়ী। আমি ওর জন্য এ গানটা করেছি, তুই পারলে ওর জন্য কিছু কাজ করিস।” এরপর সুমনার যত গান ইউটিউবে পাওয়া যায়, তার প্রায় সবগুলোই কয়েকবার করে শুনেছি। মনে হলো, চেষ্টা-নিষ্ঠা থাকলে সংগীতাঙ্গনে সে আরও এগোতে পারবে।’

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন