বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নতুন নির্বাচিত সভাপতি সুরাইয়া আলমগীর বলেন, ‘এটি তাঁর (ফকির আলমগীর) প্রাণের সংগঠন। দেশের যেকোনো ক্রান্তিকালে ঋষিজ এগিয়ে গেছে। আমি মনে করি, ঋষিজ ফকির আলমগীরের আরেকটি সন্তান। এই সংগঠনকে তিনি লালন-পালন করে এত দূর নিয়ে এসেছেন। তাঁর প্রয়াণে সব সদস্যের সম্মতিক্রমে আমাকে স্থলাভিষিক্ত করা হয়। সবার অনুরোধে আমি দায়িত্বটি নিয়েছি বটে, তবে এটা আমার জন্য দুঃসাহসের মতো।

default-image

কারণ, তাঁর মতো গুণী-বিচক্ষণ সংগঠক আমি নই। আমার স্বপ্ন, ফকির আলমগীরের স্বপ্ন বুকে ধারণ করে সংগঠনটিকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। তাতে তাঁর আত্মা শান্তি পাবে।’
এদিকে সংগঠনটির নবনির্বাচিত জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফকির আলমগীরপুত্র ফকির মাশুক আলমগীর বলেন, ‘পারিবারিক সূত্রে মনেপ্রাণে সংগীতের মানুষ হলেও পেশায় আমি একজন অধ্যাপক। তবে বাবার আদর্শ তথা গণসংগীতের স্বার্থে আমি অধ্যাপনার পাশাপাশি নিয়মিত গানে ফিরতেও প্রস্তুত। ঋষিজের পতাকা ওড়াতে চাই সারা বিশ্বে।’

ঋষিজ শিল্পীগোষ্ঠীর নবনির্বাচিত কমিটিতে স্থান পাওয়া ফকির আলমগীর পরিবারের অন্য সদস্যরা হলেন ফকির সিরাজ, হাসান আলমগীর রাহুল, আশেক আলমগীর, ফকির মিজানুর রহমান, ফকির জাহিদ হাসান, তামজিদুর রহমান ও লুৎফুর রহমান শাহীন।

default-image

‘ভয় কি মরণে রাখিতে সন্তানে’ চারণকবি মুকুন্দ দাসের এ অভয়বাণীকে কণ্ঠে ধারণ করে ১৯৭৬ সালের ২২ নভেম্বর যাত্রা শুরু করে সাংস্কৃতিক সংগঠন ঋষিজ। এ সংগঠনের দলীয় সংগীতের শেষ চারটি চরণ এমন, ‘তমসার ক্ষণে নেব ঋষিজের নাম/ উৎসব দিনে নেব ঋষিজের নাম/ উজ্জ্বল সূর্যের আলোকিত বন্যায়/ মুক্তির সুরে ঋষিজের গান’ ঋষিজের এই গানের মতোই তাদের পথচলা।

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন