default-image

ব্যক্তিজীবনের ওপর দিয়ে ঝড় বয়ে গেছে গায়িকা মিলার। এই ঝড় তাঁর সংগীতজীবনকে টালমাটাল করে দিয়েছিল। অনেক দিন কোথাও দেখা যায়নি তাঁকে। দুঃখ-কষ্ট আর অভিমানে একেবারে নিজের মতো করে কাটিয়ে দিয়েছেন অনেকটা দিন। কারও সঙ্গে দেখা পর্যন্ত হতো না তাঁর। কিন্তু অভিমান করে আর কত দিন? ভক্ত-শ্রোতাদের টান অনুভব করে মিলা আবার ফিরলেন গানের জগতে। সবকিছু ঝেড়ে-মুছে আবার সরব হলেন রকগানের মিলা। এ যেন তাঁর দাপুটে ফেরা। একসঙ্গে দেশের আনাচ-কানাচে অনেকগুলো স্টেজ শোতে নিজেকে ব্যস্ত রাখছেন। মিলার ভাষায়, এ প্রত্যাবর্তন রকস্টার মিলার নয়, দ্য নিউ দুর্গা ইজ বর্ন।

দুই বছর অডিও কিংবা সিনেমার গানে কণ্ঠ দেননি মিলা। পাওয়া যায়নি কোনো টিভি অনুষ্ঠান বা গণমাধ্যমের অন্য কোনো আয়োজনে। হাতে গোনা দু-একটি মঞ্চে হঠাৎ হঠাৎ দেখা মিলত তাঁর। মিলা জানান, গানে ফিরে তিনি প্রাণটা ফিরে পেয়েছেন। তাঁর মতে, ভালোবাসার সঙ্গে অভিমান করার কোনো মানে হয় না। গানকে অবহেলা করা মানে, নিজেকে অস্বীকার করা। সেই ভাবনা থেকেই গেল ছয় মাস নিজেকে আবার গড়েছেন তিনি। এখন একের পর এক অনুষ্ঠানে গাইছেন এবং সময়টা বেশ উপভোগ করছেন।

এক যুগ আগে গানের জগতে মিলার অভিষেক ঘটে। প্রথম অ্যালবামেই বাজিমাত করেন। ফুয়াদ আল মুক্তাদিরের সুর ও সংগীতের সেই অ্যালবামের কয়েকটি গান শ্রোতাদের মুখে মুখে ফিরতে থাকে। এর ঠিক দুই বছর পর ‘চ্যাপটার টু’ অ্যালবাম দিয়ে মিলা আরও এগিয়ে যান। এই অ্যালবামেরও কয়েকটি গান শ্রোতারা সহজে লুফে নেন। ‘যাত্রাবালা’ বা ‘বাবুরাম সাপুরে’ গান দুটির কথা বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে গান করার অনুরোধ পেতে থাকেন। সবকিছুই ঠিকঠাক চলছিল। অডিও, চলচ্চিত্রের গান ও স্টেজ শোতে বেশ দাপটের সঙ্গে কাজ করতে থাকেন তিনি। ২০১৭ সালে বিয়ের পর তাঁর গতিময় সংগীতজীবনে ছন্দপতন ঘটে। বিয়ের কয়েক মাস আগে থেকে মিলা গানে অনিয়মিত হয়ে পড়েন। বিয়ে ও বিচ্ছেদ নিয়ে জীবনে তিক্ত অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হন তিনি। এ নিয়ে গণমাধ্যমের ওপরেও ছিল তাঁর ক্ষোভ।

সম্প্রতি মিলা প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমার মৃতপ্রায় অবস্থা দেখে সবাই খুব খুশি হয়েছিল। জীবনের কষ্টের সময়টাতে আমার আশপাশে কেউই ছিল না। বিরোধী পক্ষ আমার নাম মুছে ফেলতে চেয়েছিল। আমার কষ্টের অবস্থা দেখে কাছের মানুষ তো চোখে সানগ্লাস পরে পাশ কেটে চলে গিয়েছিল। ভুলিনি কিছুই। এই সব যন্ত্রণা নিয়েই আমি আবার গানে ফিরেছি।’ মার্চ মাসের শুরু থেকে মিলা স্টেজ শোতে সক্রিয় হয়েছেন। এ মাসেই ঢাকা ও ঢাকার বাইরে এরই মধ্যে ছয়টি স্টেজ শোতে অংশ নিয়েছেন তিনি। আরও কয়েকটি শো নিশ্চিত হয়ে আছে তাঁর।

বিজ্ঞাপন
গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন