কৈশোরেই ব্যান্ডে জড়িয়ে পড়েছিলেন নকীব খান। বালার্ক ব্যান্ডে গায়ক, পিয়ানিস্ট ও শিল্পী হিসেবে তাঁর প্রথম আত্মপ্রকাশ। কিছুদিন পর যোগ দেন সোলসে। বাংলাদেশের ব্যান্ডের নতুন স্বর সোলস। স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালে সাহেদ উল আলমের নেতৃত্বে নতুন স্বপ্নে বিভোর কয়েক তরুণ চালু করেন সুরেলা নামের একটি অর্কেস্ট্রা দল। ১৯৭৪ সালে নাম বদলে রাখা হয় সোলস। সাজেদ, লুলু ও রনি ছিলেন প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। শিল্পী তপন চৌধুরী ও আহমেদ নেওয়াজের পর সে বছরই সোলসে এ যোগ দেন নকীব খান। তারপর নিজেদের কথা ও সুরে গান শুরু করে দলটি।

সোলসে প্রায় ১০ বছর ছিলেন নকীব খান। বাবা মারা যাওয়ার পর চট্টগ্রাম ছেড়ে চলে আসেন ঢাকায়। ১৯৮৫ সালে গড়ে তোলেন নিজের ব্যান্ড রেনেসাঁ। ১৯৮৮ সালে আসে দলের প্রথম অ্যালবাম ‘রেনেসাঁ’ নামেই। ১৯৯৩ সালে ‘তৃতীয় বিশ্ব’, ১৯৯৮ সালে ‘৭১-এর রেনেসাঁ’ এবং ২০০৪ সালে ‘একুশ শতকের রেনেসাঁ’ নামে অ্যালবাম প্রকাশ করে তারা।

১৯৯৩ সালে বিয়ে করেন নকীব খান ও নুসরাত খান। তাঁদের রয়েছে এক মেয়ে ফাবিহা খান ও এক ছেলে জারিফ খান। চাকরি করেছেন বেশ কিছু বহুজাতিক ও দেশীয় প্রতিষ্ঠানের উচ্চপদে। মিউজিক কম্পোজার সোসাইটি বাংলাদেশের সভাপতি তিনি।