default-image

‘ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক’ প্রদান অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামানের কাছ থেকে ফেরদৌসী রহমান ও সৈয়দ আব্দুল হাদী এই স্বর্ণপদক ও পুরস্কার গ্রহণ করেন। করোনার কারণে গত দুই বছর এই পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান আয়োজন করতে না পারায় এ বছর একই সঙ্গে ২০২০ সালের জন্য দুজন গুণী শিল্পীকে পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হয়। আজ বুধবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে আয়োজিত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই দুজন গুণী সংগীতশিল্পীকে ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক প্রদান করা হয়।

ফিরোজা বেগম এই উপমহাদেশে নজরুলসংগীতের এক কিংবদন্তি শিল্পীর নাম। বরেণ্য এই শিল্পীকে স্মরণীয় করে রাখতে এসিআই ফাউন্ডেশনের আর্থিক পৃষ্ঠপোষকতায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবর্তিত হয় ফিরোজা বেগম মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ফান্ড। প্রখ্যাত এই কণ্ঠশিল্পীর জীবন ও কর্মের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এই ট্রাস্ট ফান্ড থেকে ‘ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক’–এর প্রবর্তন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। দেশের কীর্তিমান শিল্পীদের সম্মান জানাতে ও দেশীয় শুদ্ধ সংগীতচর্চার প্রতি নতুন প্রজন্মকে উৎসাহ দিতে এই প্রয়াস।

default-image

ফেরদৌসী রহমান বলেন, ‘ফিরোজা বেগম অনেক বড়মাপের শিল্পী, তাঁর ওপর এ পুরস্কার দেওয়া হয়েছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দেওয়া হয়েছে। তাই এ পুরস্কার আরও বেশি সম্মানের। এত দিন যাঁরা এ পুরস্কার পেয়েছেন, তাঁরাও খুবই সম্মানের। আমি জেনেছি, সাবিনা ইয়াসমীন, রুনা লায়লা, ফরিদা পারভীন, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার মতো শিল্পীরা এ পুরস্কার পেয়েছেন।’

পুরস্কার পাওয়ার পর সৈয়দ আব্দুল হাদী তাঁর বক্তব্য বলেন, ‘জীবনের এই অধ্যায়ে এসে আনন্দের উৎসগুলো খুব সংকুচিত হয়ে আসে। খুব দুর্লভ হয়। তবে এমন এক মুহূর্তে আজকের পুরস্কার প্রদান করা হচ্ছে, যা অনেক আনন্দের বার্তা নিয়ে আসে। আজকে যে পদক নিচ্ছি, এটা অবশ্যই আনন্দের। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে, এই পদকটি গ্রহণের মধ্য দিয়ে ফিরোজা বেগমের মতো একজন শিল্পীকে তাঁর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে পারছি।’

default-image

ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক অনুষ্ঠানের আয়োজক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, পদক প্রদান অনুষ্ঠান প্রচলনের পর থেকে সংগীতে অসামান্য অবদানের জন্য সাবিনা ইয়াসমীন (২০১৬), রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা (২০১৭), রুনা লায়লা (২০১৮), ফরিদা পারভীনকে (২০১৯) এই পদক প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে সংগীতশিল্পী ফিরোজা বেগমের সহোদর ও এসিআই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান এম আনিস উদ দৌলা তাঁর স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই উদ্যোগের প্রশংসা করেন। তিনি অতীত রোমন্থন করে সংগীতের প্রতি শিল্পী ফিরোজা বেগমের নিষ্ঠা, ত্যাগ এবং চর্চার কিছু স্মৃতি তুলে ধরেন। ফিরোজা বেগম ট্রাস্ট ফান্ড থেকে খ্যাতিমান শিল্পী ছাড়াও প্রতিবছরের মতো এবারও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের সর্বোচ্চ সিজিপিএ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীকে স্বর্ণপদক ও ২০ হাজার টাকার চেক দেওয়া হয়।

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন