অগ্রহায়ণের শীত শীত সন্ধ্যা দ্রুতই ফুরিয়ে যায়। রাত নামতেই প্রাণ-চঞ্চলতায় মুখর হয়ে ওঠে আর্মি স্টেডিয়ামের প্রতিটি প্রান্ত, দর্শকদের কেউ এসেছেন বন্ধুদের সঙ্গে, কেউবা পরিবার নিয়ে। প্রিয় গানের কলি তাঁদের মুখে মুখে। রাত ৯টার কিছু আগে উপস্থাপক মারিয়া নূর মঞ্চে এসে দর্শকদের প্রশ্ন ছুড়লেন, এবার কোন ব্যান্ড আসছে? উত্তরটা অবশ্য তিনি নিজেই দিলেন। তবে ব্যান্ডের নাম বললেন না, জানালেন গানের নাম—‘আমি তারায় তারায় রটিয়ে দেব তুমি আমার’। আর বুঝতে বাকি থাকে, পুরো স্টেডিয়াম তখন বলে উঠল, জেমস। স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে যাঁরা বসে ছিলেন, সেসব দর্শকও দৌড়ে নেমে এলেন মাঠে।

জেমসের জন্য তখন ব্যাকুল অপেক্ষায় আর্মি স্টেডিয়াম, মঞ্চের লাল-নীল আলো ফুঁড়ে দর্শকের সামনে এলেন তিনি। নাগরিক বাউলকে তুমুল করতালিতে অভিবাদন জানালেন দর্শকেরা। দুহাত প্রসারিত করে অভিবাদনের জবাব দিলেন জেমস।

প্রায় ফুরিয়ে আসা হেমন্তের এক ফালি চাঁদের আলোয় সম্মোহনী দরাজ কণ্ঠের জাদুতে মুগ্ধ করতেও সময় লাগল না। দরাজ কণ্ঠ, গিটার ও ড্রামসের মেলবন্ধনে রক সংগীতের মায়াজাল ছড়াল নগরবাউল। স্বভাবজাত ভঙ্গিমায় মঞ্চে এসেই কণ্ঠে তুললেন ‘কবিতা তুমি স্বপ্নচারিণী হয়ে’। জেমসের সঙ্গে পুরো স্টেডিয়ামে হাজির দর্শকেরাও গেয়ে চলেছেন। গান শেষ করে জেমস বললেন, ‘লাভ ইউ’।

এরপর ‘গুরু ঘর বানাইলা’ বলেই থেমে গেলেন জেমস, পরের লাইনটা গেয়ে দিলেন দর্শকেরা। ততক্ষণে গানের তালে উন্মাতাল হয়ে উঠেছেন দর্শকেরা, গানের তালে নাচতে দেখা গেল তরুণদের। মাঝে ‘মা’ পরিবেশন করে মাইক্রোফোন হাতে জেমস বললেন, ‘মাঠে কি দুষ্টু ছেলেদের দল আছে?’ মাঠে বিছানো সবুজ ঘাসও যেন বলে উঠল, আছে।

‘দুষ্টু ছেলের দল’ গাওয়ার মাঝে জেমস বললেন, ‘আজ তোমরাই আমার জান, তোমরাই আমার প্রাণ। যত দিন তোমরা আছ, তত দিন আমি আছি।’ দর্শকের উদ্দেশে উড়ন্ত চুমু ছুড়ে গানে ফিরলেন জেমস। গাইলেন, ‘আমি তারায় তারায় রটিয়ে দেব তুমি আমার,’ সঙ্গে মঞ্চের লাল-নীল বাতির ঝলকানি চাঞ্চল্যের ঢেউ খেলে যায় চারপাশে। এরপর ‘মীরা বাঈ,’ ‘পাগলা হাওয়ার তরে,’ গেয়ে কনসার্ট জমিয়ে তোলেন জেমস। এরপর হিন্দি গান ‘ভিগি ভিগি’ দিয়ে পরিবেশনা শেষ করেন তিনি।

প্রয়াত ব্যান্ড তারকা আইয়ুব বাচ্চুর স্বপ্নের এ কনসার্টকে আরও বিস্তৃত পরিসরে আয়োজন করেছে চ্যানেল আই ও বামবা। গতকাল শুক্রবার ‘ব্যান্ড মিউজিক ফেস্ট -২০২২’ শুরু হয় বেলা সোয়া দুইটায়। কনসার্টটিতে গান পরিবেশন করেছে দেশসেরা ১৬টি ব্যান্ড। নগরবাউলের আগে মঞ্চে গান পরিবেশন করেছে অর্থহীন, দলছুট, ক্রিপটিক ফেট, শিরোনামহীন, রেনেসাঁ, পাওয়ারসার্জ, ফিডব্যাক, অবসকিউর, পেন্টাগন ও ভাইকিং।

দলছুটের ‘আমি তোমাকেই বলে দেব,’ ‘শিরোনামহীনের ‘বন্ধ জানালা,’ ‘হাসি মুখ,’সহ সব ব্যান্ডের গান উপভোগ করেছেন দর্শকেরা। নগরবাউলের পর গান পরিবেশন করার কথা রয়েছে সোলস, মাইলস, আর্টসেল ও ওয়ারফেজের।