দেশের সংগীতাঙ্গনে এই মুহূর্তে যেসব কণ্ঠশিল্পীরা ব্যস্ত সময় পার করছেন, তাঁদের কারও কারও শুরুটা হয় চ্যানেল আইয়ের রিয়ালিটি শো সেরাকণ্ঠ দিয়েই। এই আয়োজন থেকে ওঠে আসা দুজন সংগীতশিল্পীর একজন ইমরান, ২০২০ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে শ্রেষ্ঠ গায়ক ও সুরকারের পুরস্কার অর্জন করেন। একই প্ল্যাটফর্মের ২০০৯ সালের চ্যাম্পিয়ান কোনালও ২০২০ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে শ্রেষ্ঠ গায়িকার পুরস্কার অর্জন করেন। তরুণ মেধাবীদের মধ্যে যাঁরা নিজেদের সংগীতাঙ্গনে মেলে ধরতে চান, তাঁদের জন্য আবার আসছে সেই সুযোগ। চ্যানেল আই থেকে জানানো হয়েছে, শিগগিরই শুরু হচ্ছে চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ ২০২২।

default-image

প্রতিভা অন্বেষণের জন্য দেশ ও দেশের বাইরে সবার মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে রিয়ালিটি শো সেরাকণ্ঠ। একে একে পার করেছে ছয়টি আসর। দেশের আনাচ–কানাচে প্রতিভাবান সংগীতশিল্পীদের খুঁজে বের করতে ‘চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ’-এর আয়োজকরা ছুটে যান দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। আয়োজকদের সঙ্গে যুক্ত থাকেন দেশের খ্যাতিমান সংগীতশিল্পীরাও। রাজধানী ঢাকা ছাড়াও দেশের প্রতিটি বিভাগের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে শিল্পী বাছাই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। গুণী সংগীতশিল্পীরা হাজার হাজার প্রতিযোগীর মধ্য থেকে প্রতিবারই খুঁজে বের করেন সেরা সব প্রতিভাকে।

default-image

সেরাকণ্ঠে অংশ নেওয়া প্রায় সব কণ্ঠশিল্পীরা সংগীতাঙ্গনে নিজেদের প্রতিষ্ঠা করেছেন। এরই মধ্যে একাধিক গানের অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে ২০০৮ সালের প্রথম রানারআপ ইমরানের। তিনি ব্যস্ত আছেন স্টেজ শো, প্লে-ব্যাক ও নাটকের গানে কণ্ঠ দেওয়ার কাজে। একই রকম ব্যস্ততায় আছেন সেরাকণ্ঠ ২০০৯ সালের চ্যাম্পিয়ান কোনাল। স্টেজ শো, প্লেব্যাক ও নাটকের গান ও অডিও গান প্রকাশের সঙ্গে কোনাল সংগীতবিষয়ক বিশেষ অনুষ্ঠান উপস্থাপনার কাজেও নিজেকে যুক্ত রেখেছেন।

রিয়ালিটি শো চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ’তে প্রথমবার একসঙ্গে বিচারক হিসেবে দেখা গেছে বাংলা গানের দুই অক্ষয় তারা রুনা লায়লা ও সাবিনা ইয়াসমীন। এই রিয়ালিটি শোতে বিচারক হিসেবে আরও দেখা গেছে সৈয়দ আবদুল হাদী, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, কুমার বিশ্বজিৎ, সামিনা চৌধুরী ও মিতালী মুখার্জি প্রমুখ।

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন