বাংলা গানের সব শাখাতেই রয়েছে তাঁর বিচরণ। বাবা কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী আব্বাসউদ্দীন।

default-image

ফেরদৌসী রহমান বললেন, ‘শিল্পী হিসেবে আমার কাছে সব পুরস্কারই সমান। কখনোই কোনো পুরস্কারকে ছোট বা বড় করে দেখি না। এটা ঠিক, কখনো হয়তো সব জায়গা থেকে পুরস্কার নিতে পারি না, তাই বলে ওই ধরনের আয়োজন খারাপ—এটাও বলি না। এবার যেই পুরস্কারটা পাচ্ছি, এটা শ্রদ্ধেয় ফিরোজা আপা নামের। তিনি অনেক সম্মানীয় একজন শিল্পী, তাঁর নামের একটি পুরস্কার পাওয়া নিঃসন্দেহে ভীষণ রকম আনন্দের। কিছুদিন আগে আমি বশীর আহমেদ ভাইয়ের নামে প্রবর্তিত একটা পুরস্কারও আনতে গিয়েছিলাম হুইলচেয়ারে করে। আমি মনে করি, ভালোবেসে পুরস্কার দিচ্ছে, এটাই বড় কথা। আয়োজকেরা উপযুক্ত মনে করেই এ পুরস্কার দিচ্ছে। তাই এটা অনেক গৌরবের।’

কথায় কথায় ফেরদৌসী রহমান জানালেন, ‘ফিরোজা বেগম অনেক বড় মাপের শিল্পী, তাঁর ওপর এ পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দেওয়া হচ্ছে—তাই এ পুরস্কার আরও বেশি সম্মানের।’ ‘এত দিন যারা এ পুরস্কার পেয়েছে, তারাও খুবই সম্মানের। আমি জেনেছি, সাবিনা ইয়াসমীন, রুনা লায়লা, ফরিদা পারভীন, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার মতো শিল্পীরা এ পুরস্কার পেয়েছে। তবে এটা ঠিক, সিনিয়রিটি মেইটেন করাটা দরকার ছিল। আমি আয়োজকদের এই কথা বলেছিও। এ ধরনের অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে পুরস্কার দেওয়ার ক্ষেত্রে জ্যেষ্ঠতার বিষয়টা ভাবা উচিত বলে আমি মনে করি।’ বললেন ফেরদৌসী রহমান।

default-image

২৮ জুলাই ফিরোজা বেগমের জন্মদিন। ২০১৪ সালের ৯ সেপ্টেম্বর তিনি মারা যান। তাঁর সুরের জাদু আর অনন্য গায়কি প্রতিভা তাঁকে করেছে অম্লান ও চিরভাস্বর। কাজী নজরুল ইসলামের গানকে ‘নজরুলসংগীত’ হিসেবে পরিচিত করার পেছনে মুখ্য ভূমিকা পালন করেন ফিরোজা বেগম।

নজরুলসংগীতকে মানুষের মনের আঙিনায় পৌঁছে দিতে ফিরোজা বেগম আজীবন সাধনা করে গেছেন। ফিরোজা বেগমকে এবং তাঁর সংগীতকে স্মরণীয় করে রাখতে এসিআই ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহায়তায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গঠিত হয় ফিরোজা বেগম মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ফান্ড। প্রতিষ্ঠানটি ২০১৬ সাল থেকে প্রতিবছর দেশের একজন বরেণ্য সংগীতশিল্পীকে স্বর্ণপদক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের মেধাবী শিক্ষার্থীদের সম্মাননা পুরস্কার প্রদান করে আসছে।

default-image

ফিরোজা বেগম ট্রাস্ট ফান্ড থেকে খ্যাতিমান শিল্পী ছাড়াও প্রতিবছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের সর্বোচ্চ সিজিপিএ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীকে স্বর্ণপদক ও ২০ হাজার টাকার চেক দেওয়া হয়।

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন