default-image

প্রথম আলোর সঙ্গে আলাপে রোববার দুপুরে মমতাজ বললেন, ‘সচেতনতা তৈরির কোনো কাজের প্রস্তাব পেলে সাথে সাথে রাজি হয়ে যাই। পরিবেশদূষণ, বাল্যবিবাহ, ট্রাফিক আইন মেনে চলাসহ সচেতনা তৈরির কত ইস্যু নিয়ে যে গান গেয়েছি, তার হিসাব নেই। মানুষ ভালোবাসে, পছন্দ করে—তাই এসব কাজে আনন্দও লাগে। আমি মনে করি, শিল্পী হিসেবে আমাদের সামাজিক দায়িত্ব অন্য অনেকের চেয়ে বেশি। তাই দায়িত্ববোধের জায়গা থেকে এসব কাজ করে থাকি। আমি মনে করি, আমাদের কথায় যদি মানুষ উদ্বুদ্ধ হয়, সচেতন হয়—এটা সমাজ ও দেশের জন্য উপকার।’

মমতাজ জানালেন, ১০টি গানের প্রস্তাব পাওয়ার পর যদি তাঁর কাছে একটিমাত্র সচেতনতামূলক গানের প্রস্তাব আসে, সবার আগে তিনি সামাজিক সচেতনতার গানটিই করে থাকেন। মমতাজ বললেন, ‘এখানে সবচেয়ে ভালো লাগার বিষয় হচ্ছে, মানুষের জন্য কিছু একটা করার সুযোগ পাচ্ছি। মানুষের জন্য কিছু করতে পারাটা সমাজ ও দেশের জন্য করা। এতে শিল্পীমন তৃপ্ত হয়, মানুষ হিসেবেও এক অর্থে নিজেকে ভাগ্যবান মনে হয়, কারণ আল্লাহ আমাকে যে মেধা দিয়েছেন, তা মানুষ, সমাজ ও দেশের উপকারে কাজে লাগছে।’

default-image

মমতাজের গাওয়া ‘সুফল’ শিরোনামের গানটির কথা লিখেছেন তুষার কান্তি সরকার আর সুর ও সংগীত পরিচালনা করেছেন জে কে মজলিশ। প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশন এবং বন বিভাগের উদ্যোগে তৈরি এই গান খুব শিগগিরই টেলিভিশন চ্যানেল, ফেসবুক, ইউটিউবসহ বিভিন্ন মাধ্যমে প্রকাশ পাবে।

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন