‘ও বন্ধু, তুমি শুনতে কি পাও...’, সেই সিনেমার ২২ বছর

টানা ২৫ সপ্তাহ ‘হাউসফুল’ ছিল ‘সাথী’ সিনেমাটিফেসবুক থেকে

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কদিন ধরে দেখা যাচ্ছে সেই গানের ভিডিও। সঙ্গে সংলাপও। এটি পশ্চিম বাংলার আলোচিত সিনেমা ‘সাথী’র গান। ২২ বছর আগে আজকের দিনে বড় পর্দায় মুক্তি পেয়েছিল টালিউডের অন্যতম ব্যবসাসফল এ সিনেমা। এই সিনেমা দিয়েই টালিউডে পথচলা শুরু করেছিলেন জনপ্রিয় অভিনেতা জিৎ। হরনাথ চক্রবর্তী পরিচালিত প্রেমের এই ছবিতে অভিনয়ের পরই পায়ের তলার মাটি শক্ত হয় জিতের, আজও তিনি কলকাতার জনপ্রিয় নায়কের তালিকায় শীর্ষে। মূলত এ সিনেমাই জিতের ক্যারিয়ার গড়ে দেয়।

১৯৯৫ সালে জিতেন্দ্র পাড়ি দিয়েছিলেন মুম্বাইয়ে। দুই বছরের চেষ্টার পর অবশেষে একটি হিন্দি মিউজিক অ্যালবামে কাজের সুযোগ পেলেন তিনি। অ্যালবামের নাম ‘বেওয়াফা তেরা মাসুম চেহেরা’। এরপর বলিউডের বেশ কিছু সিনেমার জন্য অডিশন দিতে শুরু করেন তিনি, কিন্তু প্রতিবারই সুযোগ ফসকে যাচ্ছিল তাঁর হাত থেকে। সুযোগ এল দক্ষিণ ভারতীয় চলচ্চিত্রজগৎ থেকে। এরপর একটি তামিল সিনেমায় অভিনয়ের সুযোগ পান জিতেন্দ্র। সেই ছবির নাম ‘চান্দু’ ।

তবে বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ে ‘চান্দু’। হতাশ হয়ে তিনি ফিরে আসেন কলকাতায়। সেখানেই তাঁর জীবনের দ্বিতীয় এবং সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস শুরু হওয়া বাকি ছিল! পরিচালক হরনাথ চক্রবর্তীর ‘সাথী’ সিনেমার নায়ক হয়ে জিতেন্দ্র থেকে তিনি হয়ে ওঠেন জিৎ। তারপর আর পেছনে তাকাতে হয়নি।

২২ বছর আগে আজকের দিনে বড় পর্দায় মুক্তি পেয়েছিল টালিউডের অন্যতম ব্যবসাসফল এ সিনেমা
কোলাজ

‘সাথী’ সিনেমাটি শুধু জিতের নয়, টালিউড ইতিহাসেরও অন্যতম ব্যবসায়িক সফল সিনেমা। টানা ২৫ সপ্তাহ ‘হাউসফুল’ ছিল সিনেমাটি। এর সাফল্যের পর জিৎকে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। তাই দিনটি জিতের জীবনে খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

জিৎ
ফেসবুক থেকে

দিনটিকে স্মরণ করে আজ শুক্রবার ফেসবুকে বিবৃতি দিয়েছেন জিৎ। সেখানেই প্রযোজক, পরিচালক, অভিনেতা-অভিনেত্রী, টেকনিশিয়ান ও দর্শকদের ধন্যবাদ দিয়েছেন জিৎ। সঙ্গে জানিয়েছেন, শুধু ‘সাথী’ সিনেমার জন্য নয়, দিনটি অন্য একটি কারণেও তাঁর কাছে বিশেষ । কারণ, ২০০৯ সালে আজকের এই দিনে মনের মানুষ মোহনার সঙ্গে প্রথমবার দেখা হয় জিতের। আর সেখান থেকেই প্রেম, বিয়ে। টালিউড থেকে বহুদিন আগে সরে গেলেও ‘সাথী’র ২২তম জন্মদিনে স্মৃতিমেদুর প্রিয়াঙ্কাও।