default-image

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন টেলিভিশন তারকা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব। তিন দিন কাঁপুনিসহ জ্বর ও শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়ায় চিকিৎসকের পরামর্শে তাঁর কোভিড-১৯ পরীক্ষা করানো হয়। ফল হাতে পেলে জানা যায়, তিনি কোভিড-১৯ পজিটিভ। গতকাল মঙ্গলবার শারীরিক অবস্থা বেশি খারাপ হলে তাঁকে রাজধানীর শ্যামলীর একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। প্রথম আলোকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পরিচালক শিহাব শাহীন।
শিহাব শাহীন জানান, শারীরিক অবস্থা খারাপ হলে অপূর্বকে আইসিইউ রাখার পরামর্শ দেন চিকিৎসকেরা। সেখানেই তাঁকে সেবা দেওয়া হচ্ছে। শিহাব শাহীন বলেন, ‘গতকাল রাতে অপূর্বর কয়েকটি টেস্ট করা হয়। ব্লাড টেস্টের রেজাল্ট ভালো আসেনি। এ ছাড়া আর কোনো সমস্যা ধরা পড়েনি। কোনো খাবার খেতে পারছিলেন না। খেলে বমি হয়ে যাচ্ছিল। শারীরিকভাবে তিনি খুবই দুর্বল ছিলেন।’

বিজ্ঞাপন

হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার আগে অপূর্ব শিহাব শাহীনের নির্মিতব্য একটি সিনেমায় এক দিনের শুটিং করেছেন। এই পরিচালক আজ বুধবার দুপুরে অপূর্বর সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা প্রসঙ্গে জানালেন, গত রাতের চেয়ে তাঁর অবস্থা কিছুটা ভালো।

default-image

এর আগে একটি শুটিং স্পটে দুজন কুশলী করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় কোয়ারেন্টিনে ছিলেন অপূর্বসহ ওই ইউনিটের সবাই। পরে দুবার করোনা পরীক্ষার পর নেগেটিভ ফল নিয়ে শুটিংয়ে ফিরেছিলেন অপূর্ব। পরিচালক মিজানুর রহমান সে সময় জানিয়েছিলেন, শুটিংয়ের আগে ২৭ জনের টিমের প্রত্যেকের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছিল। এর মধ্যে একজনের করোনা পজিটিভ এসেছিল। তাঁকে বাদ দিয়ে শুটিং শুরু করেন পরিচালক। ইউনিটের সবার করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট ‘নেগেটিভ’ নিয়ে নাটকের শুটিং শুরু হয় ৭ জুলাই। ৮ জুলাই নাটকটির সেটে দুজনের কোভিড-১৯ পজিটিভ ধরা পড়ে। সঙ্গে সঙ্গে নাটকের টিমের সবাই শুটিং বন্ধ করে কোয়ারেন্টিনে চলে যান। সেই দলে ছিলেন অপূর্বও। সে সময় অপূর্ব বলেন, ‘বাস্তবতা মেনে নিয়েই চলতে হবে। কাজ করতে হবে। তবে এবার আরও সতর্ক হয়ে কাজ শুরু করলাম।’
নানা রকম সতর্কতা সত্ত্বেও করোনায় আক্রান্ত হলেন অপূর্ব। তাঁর সুস্থতার জন্য সবার দোয়া চেয়েছেন তাঁর সহকর্মীরা।

default-image
মন্তব্য পড়ুন 0