বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

শান্তা ইসলাম জানালেন, করোনার আগে তাঁর পরিচালনা ও উপস্থাপনায় আরটিভিতে প্রচারিত হচ্ছিল ‘ধ্রুপদি কাহিনি’ এবং মাছরাঙা টেলিভিশনে ফ্যাশন ও বিউটি–সম্পর্কিত অনুষ্ঠান ‘অসাধারণ’। করোনার কারণে দুটি অনুষ্ঠানই পৃষ্ঠপোষকের জটিলতায় বন্ধ হয়ে যায়। সে হিসাবে দেড় বছর পর নির্মাণ ও উপস্থাপনা শুরু করলেন তিনি। শান্তা ইসলাম বলেন, ‘সবাই স্বপ্ন দেখেন, কিন্তু স্বপ্নের পথটি ধরে সবাই হাঁটতে পারেন না। যে কজন পারেন, তাঁরা কেমন করেই–বা স্বপ্নের পথ পাড়ি দিতে পারেন; এমন ভাবনা নিয়ে স্বপ্নের পথে পাড়ি দেওয়া মানুষদের সাফল্যের গল্প আড্ডার মাধ্যমে এ অনুষ্ঠানে তুলে ধরার চেষ্টা করা হবে। “লাইফ ইজ বিউটিফুল”-এর ট্যাগলাইন হলো সফলতার গল্প, ঘুরে দাঁড়ানোর গল্প।’

default-image

অভিনয়ে অনিয়মিত হওয়ার পর পরিচালনা শুরু করেন শান্তা ইসলাম। একসময় নাটক নির্মাণেও বিরতি নেন। প্রসঙ্গটি মনে করিয়ে দিতেই শান্তা ইসলাম বলেন, ‘তখন আমার একমাত্র ছেলে স্কুলের শিক্ষার্থী। নাটক বানিয়ে বা অভিনয়ের ব্যস্ততায় ছেলেকে ঠিকমতো সময় দিতে পারছিলাম না। তাই নাটক নির্মাণ ও অভিনয় থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিই। তখন টেলিভিশন চ্যানেলের জন্য টক শো নির্মাণ শুরু করি। এতে করে নিজের সময়টাকে নিজের ইচ্ছেমতোই ব্যবহার করতে পারছি।’

টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন