বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

নূর ভাইয়ের অভিনয়ে সহজাত একটা ব্যাপার আছে, খুব আপাতসহজ, যেটা মানুষ পছন্দ করে। তাঁর অভিনয়ের এই সহজাত ধারাটা সবাই পছন্দ করতেন। হ‌ুমায়ূন আহমেদ তো সেই ‘এইসব দিনরাত্রি’ থেকে ‘অয়োময়’ পর্যন্ত চরিত্রগুলো নূর ভাইয়ের জন্যই তৈরি করেছেন। ‘কোথাও কেউ নেই’-এর বাকের একটা চ্যালেঞ্জিং চরিত্র। একই সময়ে ‘অয়োময়’র মির্জা আউট অব দ্য ওয়ে একটা চরিত্র।

default-image

মঞ্চে আবার নূর ভাইকে অন্যভাবে দেখি আমরা। ‘গ্যালিলিও’তে তিনি অন্যভাবে এসেছেন। চরিত্রকে তিনি নিজের মধ্যে ধারণ করে তাঁর নিজের মতো করে ইন্টারপ্রিটেশন করতেন, যেটা বেশির ভাগ মানুষ পছন্দ করে। মঞ্চে অবশ্য আমি ও নূর ভাই কখনোই একসঙ্গে কাজ করিনি।
মানুষ আসাদুজ্জামান নূর বরাবরই সদালাপী। দায়িত্বের মধ্যে যা যা পড়ে সবই করেন। ভীষণ বন্ধুবৎসল। পরিবার ও বন্ধুদের ব্যাপারে তিনি খুব যত্নশীল।

default-image

নূর ভাইয়ের লেখার হাত খুব ভালো। অ্যাডাপ্টেশন (রূপান্তর) খুব ভালো করেন। নাট্যরূপও খুব ভালো দেন। এই কাজগুলো আরও বেশি করা দরকার বলে আমি মনে করি। এই কাজটা তিনি এক্সপ্লোর করতে পারেন। খুবই ভালো অনুবাদ করতে পারেন—এ দিকটায় তিনি যেন আরও বেশি মনোযোগী হোন, এটাই আশাবাদ রইল। আমার প্রত্যাশা, নূর ভাই অনেক দিন সুস্থভাবে থাকুন। দীর্ঘায়ু কামনা করি।

টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন