বিজ্ঞাপন

ফারিয়া জানান, পরিবার থেকে কয়েক বছর ধরেই বিয়ের জন্য চাপ দিচ্ছিল। কিন্তু পড়াশোনা শেষ করার জন্য পরিবার থেকে সময় চেয়েছিলেন তিনি। মালয়েশিয়ার এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ে মিডিয়া মার্কেটিংয়ে স্নাতক শেষ করে ২০১৯ সালের শেষে ঢাকায় ফেরেন তিনি। এরপর আবার অভিনয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

default-image

পরিবারের চাপ এবং নিজের তাগিদ থেকে এই সময়ে বিয়ের ব্যাপারে সম্মত হয়েছেন তিনি। নতুন জীবন শুরুর আগে বাগদান অনুষ্ঠান শেষে প্রথম আলোকে তিনি বলেন, ‘বিনোদন অঙ্গনে ভাঙনের একটা হিড়িক যেন। আমি সবার কাছে দোয়া চাই, কখনোই বিচ্ছেদ নয়, সারা জীবন একসঙ্গে যেন থাকতে পারি, সেই চিন্তা থেকে এই মানুষটাকে জীবনসঙ্গী হিসেবে বেছে নিয়েছি। আমরা পারিবারিকভাবে বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সবাই দোয়া করবেন, যেন একটা সুন্দর সুখের সংসারজীবন আমরা কাটাতে পারি।’

default-image

বাগদান শেষে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার জন্য এত লম্বা সময়ের কারণ জানতে চাইলে ফারিয়া বলেন, ‘নতুন জীবন শুরু করতে প্রস্তুতির একটা ব্যাপার আছে। কেনাকাটাসহ পারিবারিকভাবে নিজেকে আরও গোছানোর ব্যাপারও আছে। তাই বিয়ের জন্য পুরো বছরটা হাতে রেখেছি।’

২০০৭ সালে ‘লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার’ প্রতিযোগিতায় প্রথম রানারআপ হয়েছিলেন ফারিয়া শাহরিন। বাংলালিংকের ‘কথা দিলাম’ প্যাকেজের বিজ্ঞাপনচিত্র তাঁর পরিচিতি বাড়িয়ে দেয়। অভিনয় করেছেন চলচ্চিত্রেও। দুটি ধারাবাহিকে অভিনয় করেছিলেন তিনি। একটি ‘দৈনিক তোলপাড়’ ও দ্বিতীয়টি ‘এয়ারকম’। সর্বশেষ কাজল আরেফিন পরিচালিত ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ নাটকে অন্তরা চরিত্রে অভিনয় করে আলোচিত হন ফারিয়া শাহরিন।

default-image

এই নাটক সম্পর্কে ফারিয়ার মন্তব্য ছিল এ রকম, ‘এই নাটকে অভিনয়ের পর থেকে এত ভালো রেসপন্স পাচ্ছি, মনে হচ্ছে বিনোদন অঙ্গনে নতুন এসেছি। এ নাটক প্রচারের পর থেকেই যেখানেই যাই, সবাই আমাকে অন্তরা বলে ডাকে। লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতার পর আমি অনেক নাটকে অভিনয় করেছি, এ নাটকের মতো রি-অ্যাকশন পাইনি। খুবই সিম্পল গল্প, মানুষ রিলেট করতে পারে।’

টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন