default-image

তিক্ত-মধুর অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হচ্ছেন অভিনেতা রাশেদ মামুন অপু। শুটিং বা অন্য কাজে ঘরের বাইরে বের হলেই দূর থেকে ভেসে আসে ‘জানোয়ার...।’ কাউকে বলতে শোনেন, ‘ওই দেখ, জানোয়ার যায়’, ‘মামুর বেটা জানোয়ার’, কখনো শুনতে হচ্ছে, ‘তোতা মিয়া জানোয়ার।’ এতে বিন্দুমাত্র মন খারাপ করছেন না তিনি। জানোয়ার বলে সম্বোধনের পেছনে লুকিয়ে আছে দর্শকের ভালোবাসা।

সম্প্রতি একটি স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পেয়েছে ওয়েবফিল্ম ‘জানোয়ার।’ সেখানে এক নৃশংস চরিত্রে অভিনয় করেছেন রাশেদ মামুন। ‘সিটিবাস’ নাটকের যে চরিত্রে অভিনয় করে তিনি পেয়েছিলেন পরিচিতি, ‘জানোয়ার’-এ ঠিক উল্টো চরিত্রে দেখা গেছে তাঁকে। রাশেদ জানান, দর্শকদের সাড়ায় তিনি অভিভূত। কেউ সরাসরি প্রশংসা করছেন, কেউ ঘৃণাভরে তাকাচ্ছেন। কেউ দূর থেকে চিৎকার করে বলছেন, ‘জানোয়ার ভাই, আমি আপনার ভক্ত।’ এ রকম কিছু অভিজ্ঞতার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘যেখানেই যাচ্ছি, যাঁরাই চিনতে পারছেন, তাঁদের কাছে আমি জানোয়ার হয়ে গেছি। অনেকেই বলছেন, “ভাই আপনি এত নিচে নামতে পারলেন!” পরক্ষণেই প্রশংসা করে বলছেন, “ভালোই করেছেন। নারী নির্যাতনকারীরা যে এত ভয়ংকর হয়, এই চরিত্রে আপনাকে না দেখলে বুঝতেই পারতাম না।” বেশির ভাগ দর্শক সত্যিকারের এই জানোয়ারদের বিচার চেয়েছেন, এটাই আমাকে আনন্দ দিয়েছে।’

বিজ্ঞাপন
default-image

নির্মাতা রায়হান রাফির কাছ থেকে ‘জানোয়ার’-এর গল্প শোনার পর ঘোরের মধ্যে চলে গিয়েছিলেন রাশেদ। মেয়েদের প্রতি নিষ্ঠুরতার বিবরণ শুনে ভীষণ ভয় পেয়ে গিয়েছিলেন তিনি। ভাবছিলেন, চরিত্রটি দর্শক কীভাবে নেবে? তিনি বলেন, ‘নারী নির্যাতনের নৃশংসতা নিয়েই “জানোয়ার”-এর গল্প। খবরের কাগজে প্রকাশিত একটি রিপোর্টের ওপর বেস করে সেই গল্প। চরিত্রটি ফুটিয়ে তুলতে অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছে। আমি চেয়েছিলাম যতটা সম্ভব নৃশংস হয়ে ওঠা যায়।’ তিনি জানান, সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন। সমাজে প্রতিনিয়ত ধর্ষণের মতো ঘৃণিত ঘটনা ঘটছে। এসব ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি চান এই অভিনেতা। তিনি বলেন, ‘আমার প্রত্যাশা, এই নৃশংসতার মাধ্যমে মানুষ পর্দার আড়ালের সত্যিকারের জানোয়ারদের ঘৃণা করুক। ছবিটি দেখে মানুষ সচেতন হোক, প্রতিরোধ গড়ে তুলুক।’

default-image

রাশেদ মামুন এখন কাজ করছেন ইফতেখার চৌধুরীর ‘মুক্তি’ ছবিতে। ছবিটির শুটিং চলছে ঢাকার আমিনবাজার। সেখান থেকে ফিরে আরও চারটি ছবিতে যুক্ত হবেন বলে জানান তিনি। টিভি নাটক দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করে এখন তিনি ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন সিনেমায়। এরই মধ্যে বেশ কয়েকটি ছবিতে যুক্ত হয়েছেন এই অভিনেতা। সেগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘নবাব এলএলবি’, ‘মিশন এক্সট্রিম’, ‘বর্ডার’, ‘পরান’। বেশির ভাগ ছবিতে তিনি অভিনয় করছেন খল চরিত্রে। জানোয়ারে আরও অভিনয় করেছেন তাসকিন রহমান, এলিনা শাম্মী, ফরহাদ লিমন, জামশেদ শামীম, জাহাঙ্গীর আলম, আর এ রাহুল, মুনমুন আহমেদ প্রমুখ।

default-image
বিজ্ঞাপন
টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন