বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন সৈয়দ আব্দুল হাদী, শাহীন সামাদ, রফিকুল আলম, লিনু বিল্লাহ, সুজিত মুস্তাফা, কাদেরী কিবরিয়া, তিমির নন্দী, বুলবুল ইসলাম, আবিদা সুলতানা, কিরণ চন্দ্র রায়, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, ফাহমিদা নবী, সামিনা চৌধুরী, ইয়াসমিন মুশতারি, ইফফাত আরা নার্গিস, চন্দনা মজুমদার, অদিতি মহসিন, সন্দীপন, বাপ্পা মজুমদার, হোমায়রা বশির, অণিমা রায়, অলক সেন, প্রিয়াংকা গোপ, হৈমন্তী, কোনাল, ইউসুফ, অপু, মেহরাব, সাব্বির, নওরীন, রাশেদ, রন্টি, ঝিলিক, শাওন গানওয়ালা, নন্দিতা, ঋতুরাজ, সুমনা, ঐশী, মৌমিতা, আনিসা, অনন্যা, প্রিয়াংকা বিশ্বাস, শিল্পী, অংকন, তরিক মৃধা, তৃষা, জায়ান, ঈশিকা, রিয়েল প্রমুখ।

default-image

গীতিকার আসিফ ইকবাল বলেন, ‘গানটি আমার জন্য অনেক আবেগের। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে এসে বিটিভির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর জন্য এই কাজ করার পেছনে আমার ব্যক্তিগত একটা উৎসাহ ছিল। কারণ, আমার আব্বা মরহুম ডা. বি এম ফয়েজুর রহমান মুক্তিযুদ্ধের একজন সংগঠক ছিলেন। ১ নম্বর সেক্টরের ডেপুটি কমান্ডার এবং হরিণা ক্যাম্পের প্রধান ছিলেন তিনি। তাই দেশ ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে আমার ভেতরে আলাদা একটা ফিলিংস কাজ করে সব সময়। আমি বলব, সেই অনুভূতি থেকেই এই গানের জন্ম।’

default-image

গানটি প্রসঙ্গে গীতিকবি সংঘের অন্যতম এই সাধারণ সম্পাদক স্মৃতিকাতর হয়ে আরও বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের বছর বঙ্গবন্ধু যখন আমার জন্মস্থান চট্টগ্রামের পটিয়ায় নামেন, তখন আমি তাঁকে হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে বরণ করার সৌভাগ্য অর্জন করি। মনে পড়ে, বঙ্গবন্ধু সেদিন আমাকে কোলে তুলে নেন। এই স্মৃতিগুলোই বারবার কাজ করছিল গানটি লেখার সময়। শুধু লেখা নয়, পুরো প্রকল্পের পরিকল্পনাও আমার করা। আমি ভাগ্যবান, দেশের ৫০ জন কণ্ঠশিল্পীর সঙ্গে আসাদুজ্জামান নূর ভাইয়ের মতো মানুষকেও পেয়েছি। সবাই প্রচণ্ড ভালোবাসা নিয়েই কাজটি করেছেন। এর জন্য আমি প্রতিটি মানুষের কাছে কৃতজ্ঞ।’

default-image

‘সুবর্ণ ৫০’ গানটির অডিও তৈরির পরে একসঙ্গে ৫০ জন শিল্পীকে নিয়ে জাতীয় সংসদ ভবনের সামনে এর ভিডিও নির্মাণ করা হয়।

টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন