default-image

চার বছর ধরে প্রেম করেছেন অভিনেত্রী ফারিয়া শাহরিন। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে আংটিবদল হয়েছে। কয়েক দিনের মধ্যে পাকাপাকিভাবে বিয়ের আসরে বসতে চেয়েছিলেন। প্রস্তুতিও চূড়ান্ত করেছিলেন। তবে করোনার প্রকোপ বাড়ায় আপাতত তিনি বিয়ে করছেন না। প্রতিদিন চেনা–পরিচিত অনেকেই করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। তাঁদের বাদ রেখে কবুল বলবেন না তিনি।

অনেকেই মনে করেছেন, ফারিয়া গোপনে বিয়ে সেরে নিয়েছেন। এটা জানতে ফেসবুকে বার্তা পাঠাচ্ছেন ভক্তরা। সম্প্রতি তিনি ফেসবুক লাইভে এসেছিলেন। সেখানেও অনেকেই তাঁকে এমন প্রশ্ন করেন। ফারিয়া বলেন, ‘আমি এখনো মা–বাবার বাড়িতেই আছি। আমাদের কেবল আংটিবদল হয়েছে। এটাকে বলে এনগেজমেন্ট। বিয়ে মানে কবুল বলা, স্বামীর বাড়িতে যাওয়া, বিশাল দায়িত্ব। অনেকেই বিয়ে আর এনগেজমেন্টের পার্থক্য না বুঝেই কথা বলছেন।’ তিনি মনে করেন, বাগদানের দিন হবু বরের সঙ্গে কিছু ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন। ছবিতে তাঁদের সাজ দেখে অনেকেই ধারণা করে নেন যে তাঁরা বিয়ে করছেন।

বিজ্ঞাপন
default-image

করোনার প্রকোপ কমে একটু স্বাভাবিক হলে সবাইকে জানিয়েই বিয়ে করবেন এই লাক্স তারকা। তার আগে কিছুদিন প্রেম করতে চান তিনি। কিছুদিন আগে করোনা পরিস্থিতি কিছু কমার কারণে তাঁরা পাঁচ তারকা হোটেলে আংটি বদল করেছিলেন। তাঁর বাগদান হয়েছে মাহফুজ রায়ানের সঙ্গে। ধানমন্ডির বাসিন্দা রায়ান একটি কুরিয়ার সার্ভিস প্রতিষ্ঠানে কর্মরত। ফারিয়া জানান, এমন অবস্থায় আরও কিছুদিন ব্যাচেলর থাকতে চান। বিয়ের নয়, এখন প্রেমটাই চালিয়ে যেতে চান।

default-image

করোনার কারণে নিয়মিত অভিনয় করতে পারছিলেন না ফারিয়া শাহরিন। ভালো চিত্রনাট্যই পাচ্ছিলেন না। ঠিক তখনই তিনি ডাক পান ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’ নাটকে। এখানে তাঁর চরিত্রের নাম ‘অন্তরা’। নাটকটি তাঁকে ব্যাপক জনপ্রিয়তা এনে দিয়েছে। এখন বাইরে বের হলে অনেকেই তাঁকে ডাকেন ‘অন্তরা’ বলে। তাঁর অভিনয় ক্যারিয়ারে পাওয়া সেরা চরিত্র এটিই। নাটকের প্রায় সব সংলাপই তিনি মেসেঞ্জারে পান। জনপ্রিয়তা কাকে বলে, সেটা কিছুটা হলেও বুঝতে পারছেন। তিনি জানান, অভিনয় ও নোয়াখালীর ভাষাটা ঠিকমতো বলার কারণে অনেকেই প্রশংসা করেন। শৈশব থেকে দাদি, নানি, মামাদের কাছে থেকে নোয়াখালীর ভাষা শিখেছেন। সেটাই এই নাটকে অভিনয়ে কাজে লাগিয়েছেন। তিনি বললেন, ‘এই নাটকে অভিনয় নিয়ে আমি খুবই নার্ভাস ছিলাম। এখন আমি খুবই খুশি। এই নাটক দিয়ে আমার নতুন জন্ম হয়েছে।’

default-image

কাজ নিয়ে ফারিয়া শাহরিনের একটাই ক্ষোভ। সব ভালো ভালো গল্প আর চরিত্র তিনি পান না। ঈদের জন্য তাঁর হাতে বেশ কয়েকটা নাটকের কাজ রয়েছে। পরিস্থিতি বুঝেই সেগুলোর শুটিং করবেন। ফারিয়া বলেন, ‘আমিও ভালো কাজ করতে চাই। কিন্তু নির্মাতাদের মাথায় শুধু কয়েকজন নায়িকার নাম ঘোরে, এটাই কষ্ট। ভালো গল্প, চরিত্র পাই না। অন্যরা পান। কেউ আমাকে নিয়ে ঝুঁকি নিলে আমি নিজের পুরো দক্ষতা দিয়ে অভিনয় করব। “ব্যাচেলর পয়েন্ট” নাটকটির নির্মাতা ও প্রযোজক আমাকে নিয়ে ঝুঁকি নিয়েছে। আমিও ভালো অভিনয় করেছি। সেই সুযোগই অনেকে দিতে চান না।’

default-image
বিজ্ঞাপন
টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন