বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, হানিফ সংকেতের নাটক দেখার জন্য দর্শকদের বাড়তি আকর্ষণ থাকে। কারণ, আজকালকার নায়ক-নায়িকানির্ভর নাটকের ভিড়ে হানিফ সংকেতের নাটক পরিবারকেন্দ্রিক হয় বলে সব শ্রেণি–পেশার দর্শকদের কাছে তা গ্রহণযোগ্য হয়। একটি পরিবারের বাবা-মা, ছেলে-ছেলের বউ ও তাদের সন্তানকে নিয়ে গড়ে উঠেছে নাটকের গল্প।

default-image

আজকাল প্রযুক্তির অপব্যবহারের প্রভাবে পারিবারিক দ্বন্দ্ব, বাবা-মায়ের সঙ্গে সন্তানদের সম্পর্ক, পরিবারের সদস্যদের মধ্যে আবেগ-অনুভূতি-সম্মানবোধের অভাব লক্ষ করা যায়। বিশেষ করে মোবাইলে পাওয়া বিভিন্ন সুবিধার সার্বক্ষণিক ব্যবহারে পরিবারের সদস্যদের মধ্যে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন ঘটনা নিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে এবারের নাটক। নাটকটি ধারণ করা হয় ঢাকার ফাগুন অডিও ভিশনের নিজস্ব শুটিং স্পটে। চিত্রগ্রহণ করেছেন খ্যাতিমান চিত্রগ্রাহক আনোয়ার হোসেন বুলু।

default-image

হানিফ সংকেত বলেন, ‘আমি নিয়মিত নাটক করি না। বছরে দুটি নাটক নির্মাণ করি। তাই এমনভাবে নাটক নির্মাণের চেষ্টা করি, যাতে পরিবারের সবাই মিলে দেখতে পারেন। নাটকের গল্পের মাধ্যমেও সমাজের ক্ষতগুলোকে তুলে ধরতে চেষ্টা করি।’ তিনি বলেন, ‘প্রযুক্তির যেমন সু-যুক্তি আছে, তেমনি কু-যুক্তিও রয়েছে। অর্থাৎ কেউবা নাচে যুগের তালে, কেউবা হুজুগেই নাচে, প্রযুক্তিকে কু-যুক্তিতে, ব্যবহারেও লোক আছে।’ প্রযুক্তির প্রভাবে সম্পর্কের কী অবনতি ঘটে, সেসব বিষয়ই নাটকটিতে তুলে ধরতে চেষ্টা করেছি।’

default-image

নাটকটিতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন আবুল হায়াত, দিলারা জামান, মীর সাব্বির, সারিকা সাবরিন, সুভাশিষ ভৌমিক, শামীম, সিমরিন লুবাবা, নজরুল ইসলাম, বিনয় ভদ্রসহ আরও অনেকে। নাটকের সূচনা সংগীতের কথা লিখেছেন মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান, সংগীতায়োজন ও কণ্ঠ দিয়েছেন এ পি শুভ। প্রচারিত হবে ঈদের দিন রাত ৮টা ৫০ মিনিটে এটিএন বাংলায়।

টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন