বাংলাদেশ টেলিভিশনে এখন প্রচারিত হচ্ছে ভাবনা অভিনীত ধারাবাহিক নাটক ‘এখানে কেউ থাকে না’। নতুন লটের শুটিং হবে আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে। অন্য চ্যানেলেও প্রচারিত হচ্ছে তাঁর একাধিক ধারাবাহিক নাটক।

default-image

এর মধ্যেই ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে জানালেন, প্রতি রাতে তিনি কাঁদতেন। কিন্তু হঠাৎ কী এমন হলো যে ভাবনাকে কাঁদতে হয়েছে? কীভাবে পরিস্থিতি সামাল দিয়েছেন? ভাবনা জানালেন, হতাশা কাটিয়ে তিনি আবার নিজেকে ফিরে পেয়েছেন। মাত্র সাত দিনের অভিনয় কর্মশালা তাঁকে নতুন জীবন দিয়েছে। দূর করেছে সব হতাশা ও বিষণ্নতা।

ভাবনা বললেন, ‘সম্ভব হয়েছে নাট‌্যনির্দেশক সৈয়দ জামিল আহমেদের কারণে। আমি অভিনয় প্রচণ্ড ভালোবাসি। প্রতিদিনই চেষ্টা করি ভালো অভিনেত্রী হওয়ার। কিন্তু আমি খুব মনমরা ছিলাম এবং প্রথমবার উপলব্ধি করলাম আমার কোনো শক্তি নেই। তারপর সৈয়দ জামিল আহমেদের অভিনয়বিষয়ক কর্মশালায় নিজেকে যুক্ত করলাম। জীবনের অসাধারণ সাতটি দিন পার করেছি। এই সাত দিনে আমি নিজেকে ফিরে পেয়েছি। অনেক প্রাণশক্তি পেয়েছি। কাজের অনুপ্রেরণা এসেছে। এই কর্মশালা করতে গিয়ে উপলব্ধি হয়েছে, জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত অভিনয় করে যেতে চাই। আজ থেকে আমি আমার জীবন, কাজ নিয়ে আরও বেশি আত্মবিশ্বাসী, মনোযোগী।’

default-image

কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ভাবনা বলেন, ‘আমি কখনো কোনো অভিনয় স্কুল, কর্মশালা, থিয়েটার ক্লাস থেকে কিছু শিখিনি। এই কর্মশালার পর গর্বের সঙ্গে বলছি, জামিল আহমেদ আমার গুরু। আমার প্রথম অভিনয়ের শিক্ষক। অসংখ‌্য ধন্যবাদ স‌্যার।’

টেলিভিশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন