এর প্রধান কাজ দুটি। প্রথমত, এটা গলার ফুলে ওঠা তন্তু থেকে বাড়তি তরল টেনে নেয়। এতে গলার ব্যথা কিছুটা কমে। দ্বিতীয়ত, এটা গলায় জমে থাকা ঘন শ্লেষ্মা পাতলা করে, যার ফলে অ্যালার্জি সৃষ্টিকারী বিভিন্ন উপাদান, ব্যাকটেরিয়া ও ফাঙ্গাস দূর হয়। এগুলোই আসলে অস্বস্তিকর খুশখুশে কাশির উৎস।

গবেষণায় দেখা গেছে, লবণ মেশানো হালকা গরম পানির গড়গড়ায় রোগীর শ্বাসনালির ওপরের দিকের সংক্রমণ ৪০ শতাংশ দূর হয় এবং ঠান্ডা লাগার অস্বস্তি বহুলাংশে হ্রাস পায়।

গরম পানি দিয়ে গড়গড়ার করার জন্য এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে আধা চামচ লবণ মেশাতে হবে। এই তরল মুখে নিয়ে প্রতিবার গড়গড়া করতে হবে কয়েক সেকেন্ড ধরে। বয়স্ক ব্যক্তিরা কাশি ও গলার জ্বালাপোড়া দূর করতে গরম পানিতে লেবু ও মধু মিলিয়ে নিতে পারেন। এ ক্ষেত্রে গড়গড়া করা পানি ফেলে না দিলেও চলে।

একটু থামুন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন