default-image

শ্বেতহস্তী পোষা

শ্বেতহস্তী শব্দের সাধারণ অর্থ সাদা হাতি। মিয়ানমার, থাইল্যান্ড—এসব দেশে সাদা হাতিকে পবিত্রতার প্রতীক হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এসব হাতিকে কোনো পরিশ্রম করানো হয় না। মনে করা হয়, সাদা হাতি রাজ্যে শান্তি ও সমৃদ্ধি বজায় রাখে। রাজার ন্যায়বিচার ও ক্ষমতার চিহ্নও এগুলো। সাদা হাতিকে বিপুল অর্থ ব্যয় করে প্রতিপালন করা হয়। কোনো কাজে যদি অনেক খরচ হয়, অথচ কোনো অর্থকরী লাভ হয় না, তখন শ্বেতহস্তী পোষার সঙ্গে তুলনা করা হয়।

default-image

ষোলোকলা

ষোলোকলা অর্থ পুরোপুরি। অমাবস্যার পর চাঁদ একটু একটু করে বাড়তে থাকে। প্রাচীন ভারতীয়রা মনে করত, চাঁদের আকার পরিবর্তন করেন ষোলোজন দেবী। এঁরা থাকেন সূর্যে। প্রতিরাতে একজন করে চাঁদে আসতে থাকেন। ফলে চাঁদের আকারও বাড়তে থাকে। চাঁদের একেকটি আকারকে বলা হয় কলা। যেদিন ষোলোজন দেবীর সবাই চাঁদে এসে পৌঁছান, সেদিন পূর্ণিমা হয়। আর চাঁদের ষোলোকলাও পূর্ণ হয়। চাঁদের এই ষোলোকলার নাম—পূষা, যশা, সুমনসা, রতি, প্রাপ্তি, ধৃতি, ঋদ্ধি, সৌম্যা, মরীচি, অংশুমালিনী, অঙ্গিরা, শশিনী, ছায়া, সম্পূর্ণমণ্ডলা, তুষ্টি ও অমৃতা।

default-image

হাতের পাঁচ

একসময় জমিদারেরা স্ত্রীদের সঙ্গে তাসের বিন্তি খেলতেন। অন্দরমহলের নারীরাও নিজেরা বিন্তি খেলতেন। সাত ফোঁটা থেকে শুরু করে বড় তাসগুলো নিয়ে বিন্তি খেলা হয়। একই ক্রমের পরপর তিনটি তাস দেখাতে পারলে বিন্তি হয়। তখন প্রতিপক্ষকে ৬৭ ফোঁটা দেখাতে হয়। বিন্তি খেলায় যে শেষের পিঠ পায়, তার পাওনা হয় পাঁচ ফোঁটা। এই পাঁচ ফোঁটা থেকে হাতের পাঁচ বা শেষ সম্বল বাগ্‌ধারা এসেছে।

তারিক মনজুর: শিক্ষক, বাংলা বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

বিজ্ঞাপন
একটু থামুন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন