বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিয়েতে পাওয়া নতুন গয়নাগুলোও কাজে লাগানো যেতে পারে ঈদের দিন। গয়নার ক্ষেত্রেও জবরজং ধাঁচটি পরিহার করতে হবে। মুক্তা আর সোনার মিশেলে ছোট গয়না বেশ মানাবে নতুন বউকে। কানে ছোট্ট ঝুমকো পরলেও বেশ লাগবে, বললেন সিক্স ইয়ার্ড স্টোরির কর্ণধার ও ডিজাইনার তাসনিম জেরিন খান।

default-image

অনেকে আবার সোনার গয়না পরতে চান না। তাঁদের পছন্দ রুপা বা ধাতব গয়না। গলায় থাকতে পারেন চোকার, হাঁসুলি বা লকেট চেন। হাতে থাকুক বালা, চিকন চুড়ি। কানে ঝুমকো, মিনা করা কানপাশা। আর ঐতিহ্যের ছোঁয়া আনতে চাইলে কোমরে পরা যায় রুপার নকশা করা চাবির গোছা।

বিয়ের পরে প্রথম ঈদ। নতুন বউয়ের সাজের প্রতিও থাকবে আলাদা নজর। সাজে ঐতিহ্যের আবহ ফুটিয়ে তুলতে চোখে দিতে পারেন মোটা করে টানা আইলাইনার কিংবা কাজল। কপালে ছোট্ট টিপ। চুলে হাত খোঁপা করে বেলি ফুলের মালা পেঁচিয়ে নিতে পারেন। শাড়ি যদি হয় লাল টুকটুকে, তাহলে ঠোঁটেও লাল কিংবা খয়েরি লিপস্টিক লাগিয়ে নেওয়ার পরামর্শই দিলেন পারসোনার পরিচালক নুজহাত খান।

default-image

সাজে যদি রাখতে চান আধুনিকতার পরশ, তবে তুলির ছোঁয়া হোক হালকা। শাড়ি যদি হয় হালকা রঙের মসলিন, তবে গালে হালকা রঙের ব্লাশনই লাগাতে হবে। চোখে কাজল কিংবা আইলাইনার না দিলেও চলবে। এই সাজে কপালে টিপ মানাবে না। চুল ব্লো ড্রাই করে নিচের অংশে কোঁকড়া করা যায়। পাশ সিঁথি করে খুলে রাখলে দারুণ লাগবে। ঠোঁটে শাড়ির সঙ্গে মিলিয়ে হালকা লিপস্টিক নতুন বউয়ের সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলবে।

জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন