করোনা কমে এলেও সুরক্ষার বিষয়টি মাথায় রেখে নতুন শাখাটিতে সব রকম সেবা দেওয়া হবে। কাটিং, মেকআপ, পেডিকিওর-মেনিকিউর, ফেসিয়াল এবং ওয়েলনেস—পাঁচটি সেবা বিশেষভাবে পাওয়া যাবে। পর্যাপ্ত পানি সরবরাহ ব্যবস্থা ছাড়াও কয়েক ঘণ্টা পরপর বাতাস পরিশোধনের বিশেষ সুবিধা রয়েছে। এ কারণে বেশ লম্বা সময় ধরে এখানে সতেজ থাকা যাবে। পরিচর্যা অথবা সাজগোজ শেষে নিজের পরিবর্তন যাচাই করে নিতে এবং সুন্দর ছবি তোলার জন্য সেলফি জোনের ব্যবস্থাও রয়েছে।

পারসোনার ব্যবস্থাপনা পরিচালক রূপবিশেষজ্ঞ কানিজ আলমাস খান বলেন, বনানীর আগের শাখাটিতে কিছু সীমাবদ্ধতা ছিল। সৌন্দর্যচর্চায় নতুনত্ব আনতে এবং আরও উন্নত সেবা দেওয়ার উদ্দেশ্যে আমরা শাখাটিকে ঢেলে সাজিয়েছি। কর্মব্যস্ততার দিন শেষে কিছু সময়ের জন্য হলেও যেন নারীরা এখানে আরামের সঙ্গে সেবা নিতে পারেন, সেই চেষ্টা করেছি।

পারসোনার নতুন শাখাটির আয়তন পাঁচ হাজার বর্গফুট। কর্মী রয়েছেন ৮০ জন, যাঁরা একসঙ্গে ১৬ জনকে সেবা দিতে পারবেন। সেবা পাওয়া যাবে সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত।