ছবি: কঙ্গনা রানৌতের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডল
ছবি: কঙ্গনা রানৌতের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডল

ত্বকের সাফসাফাই

default-image

কঙ্গনা নিয়মিত ক্লিনজিং, টোনিং আর ময়েশ্চারাইজিং করেন। মুখ সাফ রাখার জন্য তিনি সাবানমুক্ত ক্লিনজার ব্যবহার করেন। এই বলিউড তারকা কখনোই মুখে সাবান ব্যবহার করেন না। কারণ, সাবান ত্বকের প্রয়োজনীয় তেলকে শুষে নেয়। একবার কঙ্গনার মেকআপ আর্টিস্ট বলেছিলেন, যে প্রসাধন করতে কয়েক ঘণ্টা সময় লাগে, সেটা কখনোই পাঁচ মিনিটে তোলা সম্ভব নয়। এরপর থেকে কঙ্গনা প্রসাধন তুলতে প্রায় ২৫ মিনিটের মতো সময় দেন। মুখ পরিষ্কার করে তিনি টোনিং করেন, এরপর ময়েশ্চারাইজার লাগান। আর শেষে আই ক্রিম লাগান। কঙ্গনার ত্বক ভীষণই স্পর্শকাতর। তাই কখনোই ফেসিয়াল করেন না তিনি।

প্রাকৃতিক উপাদান

default-image

কঙ্গনা প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে নিজের ত্বকের পরিচর্যা করেন। তিনি ত্বকে মধু লাগানোর পরামর্শ দেন। কারণ, মধুতে ভরপুর অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল গুণ আছে। তাই মধু লাগালে ব্রণ বা ত্বকের অন্য কোনো সমস্যা হয় না।

বিজ্ঞাপন

পুষ্টিকর খাবার খান

default-image

কঙ্গনার মতে আপনি যা খাবেন, তারই প্রতিফলন ত্বকে ফুটে উঠবে। তাই এই বলিউড নায়িকা সব সময় পুষ্টিকর খাবার খেতে পরামর্শ দেন। বিশেষ করে তিনি অরগানিক শাকসবজি, ডাল, মসলা খেতে বলেন। আর ত্বককে সতেজ রাখতে হলে অবশ্যই প্রচুর পরিমাণে পানি খেতে হবে।

চুলের দেখভাল

default-image

কঙ্গনা নিজের চুলের যত্নআত্তির জন্য অরগানিক সামগ্রী বেছে নিয়েছেন। কারণ, অভিনয়ের কারণে তাকে নানান হেয়ার স্টাইলিং সামগ্রী ব্যবহার করতে হয়। কঙ্গনা নিয়মিত হেয়ার স্পা আর ডিপ কন্ডিশনিং ট্রিটমেন্ট করান। এ ছাড়া তিনি সপ্তাহে তিনবার তেল লাগিয়ে স্টিম নেন। আর হেয়ার স্টাইলিংয়ের ক্ষেত্রে এই নায়িকা সাবেকি হলিউড স্টাইল পছন্দ করেন।

কঙ্গনার প্রসাধন

default-image

লিপ বাম আর ব্লাশার—এ দুটি প্রসাধনসামগ্রী ছাড়া কঙ্গনার একদম চলে না। লাল রঙের লিপস্টিক আর গাঢ় কালো রঙের কাজল লাগাতে তিনি ভালোবাসেন। এ ছাড়া গোলাপি, আর পেল লিপস্টিকও তাঁর পছন্দের তালিকায় আছে। কঙ্গনার ত্বকে কোনো দাগ নেই। তাই বেস মেকআপ ভারী করেন না। মুখে শুধু ব্লাশার আর কন্সিলর ব্যবহার করেন এই তারকা।

কঙ্গনার ডায়েট

default-image

কঙ্গনার সৌন্দর্যের আসল রহস্য ডায়েটে লুকিয়ে আছে। পুষ্টিকর খাবার ছাড়া তিনি অন্য কিছু মুখে তোলেন না। তাঁর ডায়েটে কার্বোহাইড্রেট, ফ্যাট আর প্রোটিনের মিশ্রণ আছে। এই ব্যালেন্স ডায়েটে আছে ৫০ শতাংশ কার্বোহাইড্রেট, ২৫ শতাংশ ভালো ফ্যাট আর ২৫ শতাংশ প্রোটিন। কঙ্গনার ডায়েটে আছে ওটমিল, পরিজ, প্রোটিন শেক, শাকসবজি, ডাল, টফুসহ আরও অনেক কিছু। ব্রেকফাস্টে তিনি সাধারণত পরিজ আর সিরিয়াল খান। কিছুক্ষণ পর তিনি প্রোটিন শেক আর ফল খান। লাঞ্চে ডাল, ভাত, সেদ্ধ সবজি, দুটো রুটি আর সালাদ খেতে পছন্দ করেন এই তারকা। বিকেলে ব্রাউন ব্রেড খান তিনি। আর তাঁর রাতের খাবারে সাধারণত থাকে সেদ্ধ সবজি, সালাদ ও স্যুপ। কঙ্গনা আগে নন–ভেজিটেরিয়ান ছিলেন। নন–ভেজ খেতেও ভালোবাসতেন তিনি। তবে এখন নন–ভেজ খাওয়া এই বলিউড অভিনেত্রী ছেড়ে দিয়েছেন। তাই শাকসবজি বেশি খান কঙ্গনা। আর কোনো রকম জাঙ্ক ফুড থেকে তিনি দূরে থাকেন। সারা দিনে কঙ্গনা কমপক্ষে ১০ থেকে ১২ গ্লাস পানি খান।

শরীরচর্চায় যোগাসন

default-image

কঙ্গনা রোজ ৪৫ মিনিট মতো যোগব্যায়াম করেন। আর এটা তাঁর রূপকথার আরেক কাহন। যোগাসনের মাধ্যমেই সারা দিন প্রাণবন্ত থাকেন এই বলিউড তারকা। মনকে শান্ত করতে কঙ্গনা প্রতি দিন ১০ মিনিটের মতো মেডিটেশন করেন।

বিজ্ঞাপন
রূপচর্চা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন