বিজ্ঞাপন

প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হিসেবে

রুক্ষ চুলে প্রাণ ফিরিয়ে আনতে প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হিসেবে তেজপাতার জুড়ি নেই। আধা লিটার পানিতে চার থেকে পাঁচটি তেজপাতা দিয়ে ফুটিয়ে নিন। ফুটানো হয়ে গেলে একটি পাত্রে ঢেলে ঠান্ডা করে নিন এবং তেজপাতাগুলো ছেকে আলাদা করে ফেলে দিন। চুলে শ্যাম্পু করার পর এই পানি চুলে মাখিয়ে পাঁচ থেকে দশ মিনিট অপেক্ষা করুন এবং পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে চুল প্রাকৃতিকভাবেই কন্ডিশনিং হয়। রুক্ষতা দূর করে চুল হয় ঝলমলে ও মসৃণ।

default-image

চুল পড়া বন্ধ করতে

তেজপাতার নির্যাস মাথার তালুর অতিরিক্ত তেল নিঃসরণ নিয়ন্ত্রণ করে এবং চুলের গ্রন্থিকোষগুলোতে বাড়তি শক্তির জোগান দেয়। ফলে, চুলের বৃদ্ধি আরও দ্রুত হয়। এ জন্য তেজপাতা পানিতে ফুটিয়ে ঠান্ডা করে তা দিয়ে চুল ধুতে পারেন। তেজপাতার পানি ব্যবহারের কিছুক্ষণ পর অবশ্যই পরিষ্কার পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নিতে হবে। চুল পড়া বন্ধ করতে প্রতিদিন এই তেজপাতার পানির ব্যবহার করা যেতে পারে।

মাথার চুলকানি কমাতে

অনেক সময় মাথার তালুতে বিভিন্ন রকম ফাঙ্গাল বা ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন দেখা দেয়। এতে মাথার ত্বকে চুলকানি, খুশকি বা র‍্যাশের মতো সমস্যা তৈরি হতে পারে। এ ধরনের সমস্যায় নিয়মিত তেজপাতার পানি ব্যবহার করলে উপকার পাওয়া যাবে। এ ক্ষেত্রে আধা লিটার পানি তেজপাতাসহ তিন থেকে চার মিনিট ফুটিয়ে ঠান্ডা করে নিতে হবে। এ পানি নিয়মিত মাথার তালুতে ব্যবহার করলে ফাঙ্গাল বা ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন দূর হয়। তবে এই সমস্যা গুরুতর আকার ধারণ করলে বা দীর্ঘদিনব্যাপী হলে ঘরোয়া চিকিৎসার ওপর নির্ভর না করে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়াই হবে বুদ্ধিমানের কাজ।

রূপচর্চা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন