ঐতিহ্য ও আধুনিকতার মিশেল

আন্তর্জাতিক ফ্যাশন বাজারে নিজেদের অবস্থান তৈরির লক্ষ্যে বাংলাদেশের ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রিতে পথচলা শুরু সারা লাইফস্টাইলের। পণ্যের গুণগত মান, কাঁচামালের উৎস, সুলভ মূল্য—এসব বৈশিষ্ট্য নিয়েই শুরু থেকেই দেশীয় ট্র্যাডিশনাল ফ্যাশন ব্র্যান্ডগুলো থেকে নিজেদের পৃথক করে নেয় ব্র্যান্ডটি। যার প্রতিফলন দেখা গেছে তাদের প্রতিটি কালেকশনে।

default-image

সারা লাইফস্টাইল ঐতিহ্য ও আধুনিকতার মিশেলে তৈরি করেছে এবারের ঈদ কালেকশন। এ বিষয়ে ব্র্যান্ডটির সহকারী ব্যবস্থাপক (ডিজাইন) শামীম রহমান বলেন, ‘ঈদ মানেই একটু আড়ম্বরপূর্ণ আয়োজন। সেই ধারাবাহিকতা আমরা বজায় রেখেছি আমাদের পোশাক সংগ্রহে। যেখানে মোটিফ হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে জিওমেট্রিক, ট্র্যাডিশনাল ও ফ্লোরাল।

default-image

উৎসবের বিশেষ উপস্থাপনার দিকে লক্ষ রেখে পোশাকগুলোর প্যাটার্নেও ভিন্নতা রাখা হয়েছে। এ লাইন, সিমেট্রিক, অ্যাসিমেট্রিক প্যাটার্নে তৈরি হয়েছে এবারের ঈদ কালেকশন। সারার এবারের ঈদ পোশাকের জমিন অলংকরণে মাধ্যম হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে স্ক্রিন প্রিন্ট, ডিজিটাল প্রিন্ট, কারচুপি, এমব্রয়ডারিকে। এ ছাড়া ব্যবহার করা হয়েছে উৎসবমুখী সব ধরনের ভাইব্রান্ট কালার ও এর বিভিন্ন শেড।’  

বিজ্ঞাপন

ঈদুল ফিতর সামনে রেখে সারা লাইফস্টাইল মেয়েদের কালেকশনটি সাজিয়েছে কয়েকটি ভাগে। যেখান থেকে বয়স এবং চাহিদা ভেদে নারীরা তাঁদের নিজেদের পছন্দের পোশাকটি খুব সহজেই বেছে নিতে পারবেন। সারা লাইফস্টাইলের ডিজাইন বিভাগ থেকে জানানো হয়, এবারের আয়োজনে মেয়েদের জন্য সারা লাইফস্টাইল এনেছে সিঙ্গল পিস, থ্রি-পিস, শাড়ি ইত্যাদি। এর মাঝে সিঙ্গল পিস কামিজ, কুর্তি, ফ্যাশন টপস ও কাফতানে প্রাধান্য পেয়েছে প্রিন্ট মোটফ।

default-image

ফ্যাশন ট্রেন্ডে এখন প্রিন্টের আলাদা চাহিদা রয়েছে। সিঙ্গল পিস হওয়ায় এগুলো মূল্য সাশ্রয়ী এবং নানা লুকে উপস্থাপন করা যায়। বলা যায়, আমাদের দেশে নারীদের মাঝে এখনো থ্রি-পিসের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। এ জন্য থ্রি-পিসের প্রোডাক্ট লাইনে রয়েছে সময় উপযোগী কিছু সংগ্রহ লনের স্টিচ ও আনইস্টিচ থ্রি-পিস, গর্জিয়াস পার্টি ও এথনিক লুকের থ্রি-পিস। এ ছাড়া বাঙালি নারীর সব সময়ের পছন্দের শাড়িতে থাকছে ডিজিটাল প্রিন্ট। সামার ডেনিমেরও রয়েছে একটি ট্রেন্ডি লাইন।

সারার এবারের আয়োজনে ছেলেদের জন্য থাকছে পাঞ্জাবি, কাবলি সেট, সিঙ্গল পিস কাবলি, ক্যাজুয়াল শার্ট, ফরমাল শার্ট, টি শার্ট, পোলো শার্ট, ফতুয়া, কাতুয়া, ডেনিম প্যান্ট, চিনোস, কার্গো প্যান্ট, পায়জামা ইত্যাদি।

default-image

প্রকৃতি ও ফ্যাশনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এবারের ঈদে সুতিসহ আরামদায়ক কাপড়ে তৈরি হয়েছে কালেকশনটি। পাশাপাশি থাকছে ফ্যাব্রিক ও ট্রেন্ডের ভিন্নতাও। এসব পোশাকে ব্যবহার করা হয়েছে কটন, ভিসকস, সাটিন, নেট, ডেনিম ও টুইল, জ্যাকার্ড কটন, ডবি কটন, জর্জেট, সিল্ক ইত্যাদি। বরাবরের মতোই সারার এবারের উৎসব আয়োজনে গুণগত মান ও ক্রেতাদের ক্রয়ক্ষমতার বিষয়টি প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। ডিজাইন ও প্যাটার্নের ভিন্নতার দিক বিবেচনা করে এসব পোশাকের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এ ছাড়া সারার ঈদ আয়োজনে ছেলে শিশুদের শার্ট বা ফতুয়ায় প্রাধান্য পাচ্ছে শর্ট ও ফুল স্লিভ। লং প্যান্টের পাশাপাশি রয়েছে কোয়ার্টার প্যান্ট। সাদা পাঞ্জাবির পাশাপাশি ভাইব্রেন্ট কালারেরও পাঞ্জাবিও থাকছে। মেয়ে শিশুদের জন্য থাকছে ফ্রক, পার্টি ফ্রক, থ্রি–পিস, জাম্প সুট, ফ্যাশন টপস, নিমা সেট, টপ ও বটম সেট।

default-image

এ ছাড়া ছেলে শিশুদের জন্য থাকছে পাঞ্জাবি, কাতুয়া, লং ও শর্ট স্লিভ শার্ট, পোলো টি-শার্ট, ফ্যাশনেবল শার্ট-প্যান্ট সেট, বয়েজ কার্গো ইত্যাদি। এ ছাড়া থাকছে বাবা-ছেলের পাঞ্জাবি ও কাবলির মিনিমি। এ ছাড়া সারার এবার ঈদের বিশেষ আয়োজনের মধ্যে থাকছে ফুল ফ্যামিলির (বাবা-ছেলে-মা-মেয়ে) একই ডিজাইনের পোশাকের সংগ্রহ।

সারা লাইফস্টাইলের প্রথম আউটলেট ঢাকার মিরপুর ৬-এ অবস্থিত। এ ছাড়া তাদের উপস্থিতি রয়েছে বসুন্ধরা সিটির লেভেল ১. মোহাম্মদপুর রিং রোড, পাশাপাশি উত্তরার সোনারগাঁ জনপদ ও বারিধারা জে ব্লকে। কোভিড-১৯-এর এই প্রাদুর্ভাবের সময়, সব ধরনের স্বাস্থ্যসুরক্ষা এবং নিরাপত্তা বজায় রেখে সারার আউটলেট থেকে পাওয়া যাবে ঈদের পোশাকের নতুন সংগ্রহ।

default-image

এ ছাড়া স্বাস্থ্য নিরাপত্তা মেনে ঢাকাসহ সারা দেশে অনলাইনের মাধ্যমে সারার নিজস্ব ওয়েবসাইট (www.saralifestyle.com.bd) এবং সামাজিক মাধ্যম তথা ফেসবুক পেজ (https://www.facebook.com/saralifestyle.bd) এবং ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডল (https://www.instagram.com/saralifestyle.bd) থেকে পণ্য অর্ডার করলেই গ্রাহকের কাছে পৌঁছে যাবে পছন্দের পোশাক। সারা থেকে ক্রেতারা ঢাকার ভেতরে অর্ডার করে এই ক্রান্তিলগ্নে হোম ডেলিভারি পেতে পারেন। এ ছাড়া ঢাকার বাইরে সারা দেশে কুরিয়ারের মাধ্যমেও পাওয়া যাবে পণ্য।

ছবি: সারা লাইফস্টাইল

ফ্যাশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন