বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

কেন ঋ? উত্তরে এই ডিজাইনার ও উদ্যোক্তা বলেন, ‘ছোটবেলা থেকেই প্রকৃতি আমাকে দারুণভাবে অনুপ্রাণিত করে। সব সময় প্রকৃতির ঋতুচক্রে আন্দোলিত হই। প্রতিটি ঋতুর আলাদা রং, রূপ, গন্ধ আমাকে মোহিত করে। অন্যদিকে নারীকে তো আমরা “ঋতুমতী” বলি। ঋতুচক্রের সঙ্গে নারীর চিন্তা, মেজাজ, মননের পরিবর্তন আসে। আবার এই ঋতুচক্রের সঙ্গেই নতুন সৃষ্টির যোগ। ঋতুর পরিবর্তনের সঙ্গে আমি নারীর বদলে যাওয়া মননের ছন্দ খুঁজি, সৃষ্টির অনুপ্রেরণা পাই। দুইয়ে দুইয়ে চার মিলিয়ে আমার উদ্যোগের নাম দিলাম ঋ।’

default-image

প্রকৃতির কাছ থেকেই রং, আকৃতি আর কম্পোজিশন পান সঞ্চিতা। একই গাছের পাতার অনেক শেডের সবুজ অথবা মাটির বিচিত্র রং থেকে আসে ভাবনা, তারপর সৃষ্টি। মাছ, পাখির পালক, আকাশের রং, গাছের মূলের কম্পোজিশন আর নদীর স্রোতের আকৃতি—এসবই টানে সঞ্চিতাকে। ঋ মূলত প্রাকৃতিক গয়নার প্ল্যাটফর্ম। সঞ্চিতা দেশি কাপড় আর উপকরণ দিয়ে শাড়ি, টপস আর ব্যাগও বানান। পোশাকে থাকে প্রাকৃতিক রং। আবার বীজও ব্যবহার করেন বোতাম বা টারসেলে। আর গয়নায় সুতা, কাঠ, মাটি, শঙ্খ, মুক্তা, সোনা, রুপা, তামার সঙ্গে ব্যবহার করেন বিভিন্ন বীজ। এভাবেই সঞ্চিতা তাঁর কাজে ধারণ করেন প্রকৃতিকে।

default-image

রঞ্জনা (লাল চন্দনবীজ), তুলসির বীজ, হরিতকি, পিন্দুক, লাটারা, রুদ্রাক্ষ, তেঁতুলের বীজ, গিলা, করলার বীজ, কুচ, রেড়ির বীজ, কৃষ্ণচূড়ার বীজ, বুনো শিমের বীজ, আলকুশির বীজ, রিঠার বীজ, কুমড়ার বীজ, আটমোরা—দেশের প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চল থেকে এ রকম নানান ধরনের বীজ সংগ্রহ করে কাজ করছে ঋ। তবে মাধুরী সঞ্চিতা কেবল সেসব বীজ দিয়েই গয়না বানান, যেগুলো থেকে কখনো গাছ জন্মাবে না। সঞ্চিতা বলেন, ‘আমরা পথে–ঘাটে, গাছের নিচে নানা রকম অনঙ্কুরিত বীজ পড়ে থাকতে দেখি। সেসব কুড়িয়ে এনে গয়না বানাই। আর সেই গয়নাই যখন মানুষ খুব ভালোবেসে হাতে, কানে, গলায়, নাকে, খোঁপায় পরে, তখন আমার মন ভরে যায়। একসময় আমি একা করলেও ইদানীং অনেককেই বীজ নিয়ে কাজ করতে দেখি। মনে হয়, এসবই আমার প্রাপ্তি আর কাজের সফলতা।’

default-image

সঞ্চিতার ‘ঋ’–তে এখন সব মিলিয়ে ১২ জন কাজ করছেন। তবে কোনো গয়না বা অলংকারের মূল নকশা তিনি নিজেই তৈরি করেন। স্বপ্নের কথা জানিয়ে এই উদ্যোক্তা বলেন, ‘একদিন দেশের সব নারীর গয়নার বাক্সে অন্তত একটি বীজের গয়না থাকবে, “ঋ”র গয়না থাকবে, এটাই আমার স্বপ্ন।’

ফ্যাশন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন