default-image

দুয়ারে দাঁড়িয়ে বসন্ত। নতুন ঋতুকে নিজের মতো বরণ করে নিতে প্রচেষ্টার কমতি নেই কারও। শাড়ি-গয়না ঠিক করা হয়ে গেছে হয়তো এরই মধ্যে। কিন্তু বসন্তদিনে চুলে একটু ফুল না হলে চলে? বসন্তবরণে নিজেকে সাজাতে তাই বেছে নিতে পারেন ফুল।

কী ধরনের ফুলে সাজাবেন নিজেকে আর কীভাবেই বা সাজাবেন সে বিষয়ে পরামর্শ দিলেন পারসোনার রূপবিশেষজ্ঞ নুজহাত খান। বললেন, সেজেগুজে কোথায় যাচ্ছেন সেটার ওপর নির্ভর করবে চুলের সাজটা কেমন হবে। এরই মধ্যে গরমও পড়ে গেছে। দিনের বেলা বাইরে থাকতে হলে চুল বাঁধা থাকাটাই ভালো। তবে স্বাচ্ছন্দ্য হলে চুল খুলেও রাখতে পারেন। অনেক সময় চুল এমনভাবে বাঁধা হয় যে সেটা কিছুক্ষণ পরই নষ্ট হয়ে যায়। এমন দিনে সারা দিন ঠিক থাকবে সেভাবে চুল বাঁধাই ভালো। চুলে বেণি বা বাস্কেট ব্রিচ করতে পারেন, পেছনের চুল খোলা রেখে সামনে ফ্রেঞ্চ সেটও করতে পারেন।

default-image

বসন্তদিনের সাজে বেশি প্রাধান্য থাকে ফুলের। কী ফুল ব্যবহার করবেন, সেটা নির্ভর করবে পোশাকের ওপর আর কীভাবে ব্যবহার করবেন, সেটা নির্ভর করবে হেয়ারস্টাইলের ওপর। ফুলের সাজের সঙ্গে একদম হালকা মেকআপেরই পরামর্শ দিলেন এই রূপবিশেষজ্ঞ। বললেন, সারা দিনের জন্য মেকআপ খুবই লাইট হবে। বাঙালিয়ানা আনতে চোখ ভরে কাজল দিতে পারেন, টিপ পরতে পারেন, মিলিয়ে সুন্দর চুড়ি পরতে পারেন। অল্প করে হাইলাইটার ও ব্লাশন ব্যবহার করতে পারেন।

default-image

আয়ুর্বেদিক রূপবিশেষজ্ঞ রাহিমা সুলতানা রীতা বলেন, পয়লা ফাল্গুনে ফুলের সাজটাই সবচেয়ে আকর্ষণীয়। এই দিনের সঙ্গে হলুদ ফুলটাই বেশি যায়। চাইলে কনট্রাস্টেও যেতে পারেন। জারবেরা বা গাঁদা ফুল লাগাতে পারেন চুলে, গাজরা লাগাতে পারেন, তার সঙ্গে মিলিয়ে আরও কিছু ফুলের ব্যবহার করতে পারেন চুলে। কেউ তো চুলে না লাগিয়ে হাতে শুধু একটু ফুল পরেন। বিষয়টা হলো, আপনি কীভাবে সাজটাকে উপস্থাপন করছেন, সেটার ওপরই নির্ভর করবে আপনার সৌন্দর্য। ফুল দিয়ে সাজলে হালকা মেকআপই ভালো। ফুলটাই উজ্জ্বল, তাই হালকা বেজ, কাজল আর লিপস্টিকই যথেষ্ট। রাহিমা সুলতানা বললেন, হলুদ শাড়িতে লাল ফুল নিতে পারেন বা সাদাও হতে পারে। শাড়ি বা সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে মেলাতে পারেন ফুলের রং। অনেকে পাড়ের রঙের সঙ্গে ফুল মেলান। অনেক রঙের ফুল মিলিয়েও লাগাতে পারেন চুলে। ফুলের মালা করেও চুলে জড়িয়ে নেন অনেকে, সেটাও দেখতে ভালো লাগে।

default-image

চুলের যত্ন
যেহেতু সারা দিনের জন্য বেরোতে হবে, সে জন্য আগের দিন তেল দেওয়ার অভ্যাস থাকলে সেটা না দেওয়াই ভালো। তাহলে শ্যাম্পু করার পরও তেল পুরোপুরি না গিয়ে থেকে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এতে কিছুক্ষণ পরে চুল তৈলাক্ত দেখাবে। এক দিন আগে তেল দিয়ে শ্যাম্পু করে পরের দিন আবার শ্যাম্পু করতে পারেন। বিশেষ দিনের পর চুলের বিশেষ যত্নটা নেওয়া খুব জরুরি। এই সময়ে ধুলা ও রোদে চুলটা নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। চুল রক্ষা করতে বিশেষ দিন শেষে চুলের জন্য কোনো ট্রিটমেন্ট নিতে পারেন।

দিন শেষে ঘরে ফিরে চুলে তেল দিয়ে রাখতে পারেন। পরদিন শ্যাম্পু করবেন। সারা দিনের জন্য বেরোলে প্রচুর পানি খেতে ভুলবেন না। আপনি ভেতর থেকে সুস্থ থাকলেই কেবল সুন্দর থাকবে চুল ও ত্বক। 

বাঙালিয়ানা আর প্রকৃতি, এই দুয়ের সংমিশ্রণ ঘটাতে পারলে সৌন্দর্য নজর কাড়বেই। শুধু মাথায় রাখতে হবে দুটি যেন একে অন্যের সঙ্গে মিলে যায়। বসন্ত দিনে দরজা পেরোলেই পেয়ে যাবেন নানান রঙের ফুল। সেখান থেকে বেছে নিতে পারেন জারবেরা, গাঁদা বা গোলাপ। ২০ থেকে ৩০০ টাকার মধ্যেই পেয়ে যাবেন পছন্দের ফুল, ফুলের মালা বা মুকুট। চাইলে নিজের পছন্দমতো অর্ডার দিয়ে ফুল বিক্রেতার কাছ থেকে বানিয়েও নিতে পারবেন ফুলের তোড়া। নিজেকে সাজানো পরিকল্পনা তো শেষ, এবার বিশেষ দিনটির জন্য শুধুই অপেক্ষার পালা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0