জিনস থাকবে নানা বৈচিত্র্যে
জিনস থাকবে নানা বৈচিত্র্যেছবি: ক্যারোলিনা গ্রাবোওস্কি, পেকজেলসডটকম

ঝুপ করে সন্ধ্যা নামার মতো মাঝহেমন্তেই শীত পরশ বোলাতে শুরু করেছে। গুছিয়ে ওঠার আগেই যেন ঠান্ডার হানা। অতএব অবহেলা করা যাবে না। রয়েছে করোনার উপস্থিতি। তাই পোশাক নিয়ে মাথা ঘামাতেই হবে। কিন্তু তাই বলে ট্রেন্ডকে উপেক্ষা করে নয়।

default-image

তাই কী পরা যায় এই শীতে? প্রশ্নটা অবশ্যই ঘুরপাক খাচ্ছে সবার মনেই। যদিও ডিজাইনাররা সেই কবে, ফেব্রুয়ারি মাসেই, জানিয়ে দিয়েছেন কী পরবেন আপনি এই শীতে। তা হয়তো মনে নেই আমাদের। এ জন্যই জানিয়ে দেওয়া যাক কী হতে পারে ট্রেন্ডি আবার শীতনিরোধক পোশাক।

বিজ্ঞাপন

এমনিতেই সবার মধ্যে বিরাজ করছে ক্যাজুয়াল মুড। বিশ্বজুড়ে পরিস্থিতি একটু স্বাভাবিক হতে না হতেই আবার অস্থির হয়েছে। যা হোক, এই বছরটায় করোনার প্রকোপে নারী-পুরুষনির্বিশেষ ঘরে-বাইরে এক করে ফেলেছে পোশাকে। ট্র্যাক স্যুট, অ্যাথলেজারই সবাই পরেছে আর পরছেও। ফলে বেশে কমেছে ডেনিমের বিক্রিবাট্টা। তবু এই শীতে পুরুষের ট্রেন্ডে রয়েছে জিনস।

default-image

কিন্তু সেই জিনস কেমন হবে, সেটা নিশ্চয়ই ভাবছেন। রেভ-রেডি অ্যাসিড ওয়াশ এবং ব্লিচড-আউট স্টাইলই এবার চলবে। দেখলে একেবারেই র মনে হবে। কেজো ডেনিম কার্গো প্যান্টও এই শীতে থাকবে। পাশাপাশি প্যাচওয়ার্ক করা ডেনিম ট্রেঞ্চকোটও এই এই জিনসের সঙ্গী হবে। হাঁটুর কাছে ছেঁড়া বেঢপ আকারের জিনসও এই শীতে আপনাকে ট্রেন্ডি করে তুলবে। থাকবে বেলবটম কাট, বুটকাটও। একই ধরনের ওয়াশের জিনস আর জ্যাকেটও ইচ্ছা করলে ওয়ার্ডরোবে রাখতে পারেন।

এই শীতে আরও একটা বিষয় দেখা যাবে—স্ট্রাপডআপ টেলরিং। অর্থাৎ ব্লেজার, কোট বা ওভারকোটে থাকবে স্ট্র্যাপ। নানাভাবে দেখা যাবে এই স্ট্রাপের ব্যবহার। কোট আর ব্লেজার হবে কখনো রেগুলার ফিট, কখনো ওভারসাইজড, ঢিলেঢালা।

default-image

এবার পিলে চমকানোর মতো একটা তথ্য দেওয়া যাক। এই শীতে পুরুষের রং হবে লাল। সঙ্গে লালের নানা শেড। হালকা, গাঢ়, কালচে, এমনকি পোড়ামাটির লাল রংও থাকবে এই প্যালেটে। তাই লাল যাঁরা পছন্দ করেন, তাঁদের পোয়াবারো।

বিজ্ঞাপন

আমাদের দেশে শীত পড়ে কম। এবার বন্যার বছর। তাই একটু বেশি পড়ার আশঙ্কা। অবশ্য কমই হোক আর বেশি, ছেলেদের মধ্যে চামড়ার জ্যাকেট-প্যান্ট পরার ট্রেন্ড লক্ষ করা যায়। এটা সবাই যে পরে, তাও নয়। তবে এই শীতে কিন্তু লেদার ইনট্রেন্ড। নানা ধরনের কাট আর প্যাটার্নের লেদার ট্রাউজার, কোট, ট্রেঞ্চকোট, জ্যাকেট বেশ চলবে। এগুলো কোনোটা রেগুলার ফিট, আবার কোনোটা স্লিম ফিট।

default-image

শীতে আরও থাকবে ফেসপ্রিন্ট আউটফিট। পোশাকে ছাপা বিভিন্ন মুখ। এক বা একাধিক। আর তা যেকোনো পোশাকে। এমনকি প্যান্টেও। পাশাপাশি আরও থাকবে চেকস। শীতবস্ত্রের মধ্যে কার্ডিগান। ট্রেন্ডসেটারদের ভাষ্য, কোটের মতোই পরবে এবার কার্ডিগান। অনেকটা বিকল্প হিসেবেও।

আস্তে আস্তে টাইটফিট পোশাক থেকে সরে আসছে বিশ্ব। এবারের শীতে সেটা পুনরায় দৃশ্যমান হবে। এমনকি যথেষ্ট ঢিলেঢালা বা ওভারসাইজড পোশাক এই শীতে থাকবে বিশেষভাবে। অনেকেরই হয়তো মনে পড়ে যাবে আশির দশকের কথা। তখন বেশ ঢিলেঢালা পোশাক পরা হতো। ফ্যাশনের আবর্তনে আবার ফিরছে অতীত স্মৃতি সজীব করতে।

default-image

আর হ্যাঁ, স্টাইপড বা ডুরে শার্ট ও কর্ডুরয় কা কডের জ্যাকেট, প্যান্ট ও শার্ট থাকবে ট্রেন্ডি পোশাকের তালিকায়। ফলে, পুরোনো কিছু থাকলে এখনই বের করে ফেলা যেতে পারে। কারণ, ট্রেন্ডে থাকতে গেলে সেই মতো পোশাক তো পরতে হবে। অতএব এখনই ঠিক করে নিন, পোশাক-আশাকে কীভাবে উপভোগ করবেন এবারের শীত।

মন্তব্য পড়ুন 0