ছবি প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গে বর–কনের বিয়ের পোশাকও সামনে এল। এই ছবির জন্যই যেন অপেক্ষা করছিলেন ভক্তরা। বিয়েতে ব্লাশ গোলাপি রঙের চিকনকারি লেহেঙ্গায় সেজেছিলেন আথিয়া। ফুল হাতা ব্লাউজের সুইট হার্ট কাটের গলার ওপর ছিল কুন্দনের ভারী গয়না। বিয়েতে দুজনই হালকা রঙের পোশাকে সাজতে চেয়েছিলেন। ভারতীয় ডিজাইনার অনামিকা খান্নার করা পোশাক পরে বিয়ের মণ্ডপে সাত পাকে ঘুরেছেন। আথিয়া শেঠির লেহেঙ্গায় করা সূক্ষ্ম কাজ ইতিমধ্যেই প্রশংসা পাচ্ছে। সম্পূর্ণ হাতে তৈরি লেহেঙ্গাটি ফুলের অলংকরণে পূর্ণ। পুরো পোশাকটি তৈরি করতে সময় লেগেছে প্রায় ১০ হাজার ঘণ্টা, জানিয়েছেন ডিজাইনার অনামিকা খান্না, অর্থাৎ ৪১৬ দিন।

অন্যদিকে রাহুল বেছে নেন আইভরি রঙের শেরওয়ানি। ওপরে ভারী কিন্তু সূক্ষ্ম এমব্রয়ডারি করা লম্বা কটি। গলায় ছিল পান্না এবং সাদা পাথরের স্তরবিশিষ্ট মালা। দুজনের পোশাকই বলে দেয়, বিয়ের পুরো আয়োজনটি স্বচ্ছন্দ্যে উপভোগ করতে চেয়েছেন তাঁরা। শুধু সাজের ওপর মনোনিবেশ করতে চাননি। এ কারণে মেকআপের বেলায়ও আথিয়া বেছে নিয়েছিলেন একদমই হালকা সাজ। মাঝে সিঁথি করে খোঁপা করে নিয়েছিলেন। সিঁথির ওপর ছিল ছোট আকারের টিকলি।

ম্যাগাজিন ভোগ ইন্ডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে অনামিকা খান্না জানিয়েছেন, আথিয়া শেঠির জন্য বিশেষ কিছু করতে চেয়েছিলেন তিনি। এটাও সত্যি যে কনে হিসেবে সব মনোযোগ দখল করে রাখতে চাননি আথিয়া। তাঁর রুচি খুবই সূক্ষ্ম এবং সুন্দর। তাঁর ব্যক্তিত্ব খুবই শক্তিশালী। সেসব চিন্তা মাথায় রেখেই বিয়ের পোশাকটি বানানো হয়েছে। লেহেঙ্গার কাজ সম্পর্কে আরও বিশদভাবে জানান অনামিকা খান্না, ‘আমরা চিকনকারির অত্যন্ত সূক্ষ্ম একটি পোশাক তৈরি করেছি, পুরো লেহেঙ্গাতেই আছে জালি এবং জারদৌসির কাজ। রঙের দিক থেকেও এটি গোলাপ পুরোনো হয়ে যেমন রং হয়, তেমন। এমনকি লেহেঙ্গার ওপর যে ধাতব রঙের ব্যবহার করা হয়েছে, সেটা দেখলেও মনে হবে কিছুটা পোড়ানো এবং পুরোনো। লেহেঙ্গার কাজ খুবই সূক্ষ্ম, মনোযোগ আকর্ষণের জন্য চিৎকার করছে না। এটি যেন পুরোপুরি আথিয়ার বৈশিষ্ট্য। এটি এমন একটি পোশাক, যেটি দেখতে আথিয়ার কখনো একঘেয়ে লাগবে না। আমরা তাঁর প্রধান পোশাকের জন্য সিল্ক এবং মাথা ও কাঁধের ওড়নার জন্য সিল্কের অর্গানজা কাপড় ব্যবহার করেছি। এই পোশাক আমাদের ভালোবাসার শ্রমেরই বহিঃপ্রকাশ।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নবদম্পতিকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বলিউড তারকারা। কৃতী শ্যানন, কার্তিক আরিয়ান, আলিয়া ভাট, আনুশকা শর্মা, অজয় দেবগন, সঞ্জয় দত্ত, ভিকি কৌশল, শিল্পা শেঠি, কারিনা কাপুর খান, সিদ্ধার্থ মালহোত্রা, কিয়ারা আদভানি, জাহ্নবী কাপুর, পরিণীতি চোপড়া থেকে বিরাট কোহলি ‘অভিনন্দন’ জানান জুটিকে। বিয়ের অনুষ্ঠানে হাতে গোনা তারকার উপস্থিতি চোখে পড়ে। হাজির ছিলেন ক্রিকেটার ঈশান শর্মা, বরুণ অ্যারন। পৌঁছেছিলেন কৃষ্ণা শ্রফ, ডায়না পেন্টি, আনুশকা রঞ্জন ও তাঁর স্বামী আদিত্য শিল।