• নারীদের মাসিক অনিয়মিত হয়; এমনকি বন্ধও হয়ে যেতে পারে। বন্ধ্যাত্ব দেখা দিতে পারে।

  • কখনো কখনো শ্বাসকষ্টের অনুভূতি হতে পারে।

  • মাংসপেশির ক্ষয় বেড়ে যায়, সক্ষমতা কমে যায়। দ্রুত হাড় ক্ষয় হয়।

  • চোখের ওপরে থাইরয়েড হরমোন বিরাট প্রভাব ফেলে। অক্ষিগোলক বড় হয়ে যায়। খসখসে অনুভূতি হয়। চোখ দিয়ে পানি ঝরতে থাকে। চোখের ওপরের পাতা ওপরের দিকে টেনে ওঠার কারণে চোখের সাদা অংশ দেখা যায়।

যেভাবে নির্ণয়

  • রক্ত পরীক্ষায় থাইরয়েডের হরমোন বেশি পাওয়া গেলে জানা দরকার কেন এমনটি হচ্ছে। কারণভেদে চিকিৎসা ভিন্ন হতে পারে। কারণ নির্ণয় করা খুবই জরুরি।

  • প্রয়োজন হয় বাড়তি কিছু পরীক্ষারও। এগুলোর মধ্যে আছে থাইরয়েডের স্ক্যান, রেডিও আয়োডিন আপটেক, অ্যান্টিবডি টেস্ট ইত্যাদি।

চিকিৎসা

  • তিন ধরনের চিকিৎসা রয়েছে। ওষুধ, শল্য ও রেডিও আয়োডিন চিকিৎসা।

  • রোগীর বয়স, লিঙ্গ, রোগের কারণ ও প্রকৃতির ওপর নির্ভর করে চিকিৎসার ধরন।

  • ক্ষেত্রবিশেষে দীর্ঘমেয়াদি চিকিৎসা নিতে হয়। বারবার ফলোআপের দরকার হয়।

লে. কর্নেল ডা. নাসির উদ্দিন আহমদ,মেডিসিন বিশেষজ্ঞ, সিএমএইচ, ঢাকা

সুস্থতা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন