• খেয়াল রাখতে হবে ড্রপ যেন কর্নিয়াতে না পড়ে এবং ড্রপের নজেল যেন চোখ না ছোঁয়।

  • প্রত্যেক চোখে এক ফোঁটা করে ড্রপ দিলেই চলে; এর চেয়ে বেশি দিলে সেটা চোখ থেকে বের হয়ে মুখ বেয়ে গড়িয়ে পড়ে। তাই একবারে কয়েক ফোঁটা দেওয়ার অর্থ আপনি অপচয় করছেন।

  • চিকিৎসক যদি আপনাকে একাধিক ধরনের ড্রপ ব্যবহারের উপদেশ দেন, তাহলে একই সময়ে দুই ধরনের ড্রপ দেওয়া যাবে না। অন্তত এক ধরনের ড্রপ ব্যবহার করার ১৫ থেকে ২০ মিনিট পরে আরেক ধরনের ড্রপ ব্যবহার করতে হবে।

  • যদি চোখের ড্রপ ও অয়েন্টমেন্ট—দুটিই ব্যবস্থাপত্রে থাকে, তাহলে আগে ড্রপ ব্যবহার করতে হবে, এরপর অয়েন্টমেন্ট। অয়েন্টমেন্ট ব্যবহারের অন্তত দুই ঘণ্টা পর আবার ড্রপ ব্যবহার করতে হয়।

  • ড্রপ ব্যবহারের কারণে যদি চোখ জ্বালাপোড়া বা অন্য কোনো সমস্যা হয়, তাহলে চিকিৎসককে বিষয়টি জানাতে হবে।

  • আগে কোনো ড্রপ ব্যবহারে অ্যালার্জির সমস্যা হয়ে থাকলে ডাক্তারকে সেই ড্রপের নাম জানান।

  • চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া নিজে নিজে চোখের ড্রপ ব্যবহার বন্ধ করবেন না।

  • আই ড্রপের মেয়াদ শেষের তারিখ দেখে নিন। চিকিৎসকের নির্দেশিত তারিখের পরও যদি আই ড্রপ বেঁচে যায়, তাহলে তা ব্যবহার করবেন না।

এড়িয়ে চলুন—

  • চোখ লাল হলে নিজে নিজে আই ড্রপ ব্যবহার করবেন না।

  • আই ড্রপের বোতলটি যেন চোখে লেগে না যায়, সেদিকে খেয়াল রাখুন। কোনো কোনো বোতলের মুখের কাছে একটি বাড়তি রিং আকৃতির অংশ থাকে, ড্রপ দেওয়ার সময় এটি খুলে না ফেললে চোখে আঘাত লাগার ঝুঁকি থাকে। এ রকম রিং থাকলে চোখে ড্রপ দেওয়ার আগেই সেটি খুলে একেবারে ফেলে দিন।

  • কখনোই চোখের কালো অংশে, অর্থাৎ কর্নিয়ায় সরাসরি ড্রপ ফেলবেন না।

  • কন্টাক্ট লেন্স পরা অবস্থায় আই ড্রপ বা অয়েন্টমেন্ট ব্যবহার করবেন না।

*ডা. মোহাম্মদ মাজহারুল ইসলাম: সহযোগী কনসালট্যান্ট, চক্ষু বিভাগ, স্কয়ার হাসপাতাল লিমিটেড, ঢাকা