এক পা ফোলার কারণ

শরীরের নিম্নভাগ থেকে রক্ত ফেরত নেওয়ার কাজ করে যে শিরা, কোনো কারণে যদি এসব শিরার মধ্যে রক্ত জমাট বেঁধে যায়, তাকে ‘ডিপ ভেইন থ্রম্বোসিস’ (ডিভিটি) বলে। ধমনির মাধ্যমে রক্ত পায়ে আসছে কিন্তু ফেরত যেতে পারছে না, তাই পা ফুলে যায়। উল্লেখ্য, জমাট রক্ত হৃৎপিণ্ড কিংবা ফুসফুসে গিয়ে মারাত্মক সমস্যা তৈরি করতে পারে। হঠাৎ ব্যথার সঙ্গে এক পা ফুলে শক্ত হয়ে যাওয়া ডিভিটির মূল লক্ষণ। এর ঝুঁকি বাড়ে যদি কোনো রোগী দীর্ঘদিন বিছানাবন্দী থাকে, ক্যানসারে ভোগে, পায়ে কোনো আঘাত পায়, উড়োজাহাজ, ট্রেন বা বাসে লম্বা পথ ভ্রমণ করে।

এ ছাড়া লসিকানালিতে ব্লক (লিম্ফ ইডিমা), প্রদাহ বা জীবাণুর সংক্রমণে সেলুলাইটিস (ত্বকের সংক্রমণ) হওয়ার কারণে পা ফুলতে পারে। অনেক সময় হাড় ক্ষয়জনিত হাঁটুব্যথাও পা ফোলার জন্য দায়ী।

করণীয়

হঠাৎ পা ফুলে যাওয়া সাময়িক যেমন হতে পারে আবার গুরুতর অন্তর্নিহিত রোগের লক্ষণও হতে পারে। কাজেই চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ নিয়ে প্রয়োজনীয় পরীক্ষার মাধ্যমে সঠিক কারণ জানা অবশ্যকরণীয়। এ ছাড়া কিছু নিয়ম মেনে চললে পা ফোলা সাময়িক কমে যেতে পারে।

১. লবণ ও লবণজাতীয় খাবার কম খাওয়া।

২. নিয়মিত ব্যায়াম করা।

৩. ঘুমের সময় পায়ের নিচে বালিশ দিয়ে পা একটু উঁচু করে রাখা।

*ডা. শিহান মাহমুদ রেদ্ওয়ানুল হক: কনসালট্যান্ট ফিজিশিয়ান, স্কয়ার হাসপাতাল, ঢাকা