স্যামসাং

স্যামসাংয়ের ৩৩০ লিটার আপরাইট ফ্রিজারের রং আছে তিনটি—সিলভার, ব্ল্যাক ও শাইনি ব্ল্যাক। রান্নাঘর বা ডাইনিংয়ের অন্দরসজ্জার সঙ্গে মিল রেখে যে কোনোটি বেছে নিতে পারেন। স্যামসাংয়ের ডিপ ফ্রিজে আছে প্রশস্ত জায়গা। পরিবারের চাহিদা অনুযায়ী সেখানে তরিতরকারি থেকে শুরু করে মাছ-মাংস, সবই সংরক্ষণ করতে পারেন। নো ফ্রস্ট প্রযুক্তি ব্যবহার করার কারণে ফ্রিজারটির প্রতিটি কোনায় তাপমাত্রা সমানভাবে বিন্যস্ত হয়। ‘স্মার্ট ডংগল’ নামে এক নতুন প্রযুক্তিও যোগ করেছে স্যামসাং, যার মাধ্যমে দূর থেকে স্মার্টফোনের অ্যাপের মাধ্যমে ফ্রিজটি নিয়ন্ত্রণ করা যায়। এ ছাড়া ডিজিটাল ইনভার্টার কম্প্রেসর ব্যবহার করছে স্যামসাং, যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে সাতটি ভিন্ন ধাপে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। কম্প্রেসরের ওপর আছে ১০ বছরের ওয়ারেন্টি। দেশজুড়ে স্যামসাংয়ের বিভিন্ন অনুমোদিত শোরুমে আপরাইট ফ্রিজার পাওয়া যাচ্ছে ৯৫ হাজার ৯০০ টাকায়।

ওয়ালটন

রেফ্রিজারেটরের বাজারে ওয়ালটন অপ্রতিদ্বন্দ্বী। এখন বাজারে ১৮টি মডেলের ওয়ালটন ফ্রিজার বা ডিপ ফ্রিজ রয়েছে, যেগুলোর ধারণক্ষমতা ১২৫ লিটার থেকে ৩০০ লিটার পর্যন্ত। দাম ২২ হাজার ৫০০ টাকা থেকে ৪৬ হাজার ৫০০ টাকার মধ্যে। ওয়ালটন ফ্রিজারে এক বছরের রিপ্লেসমেন্ট সুবিধা আছে। আর কম্প্রেসরে দেওয়া হচ্ছে ১২ বছরের গ্যারান্টি। সেই সঙ্গে থাকছে ৫ বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা। এ জন্য সারা দেশে ওয়ালটনের ৭৭টি সার্ভিস পয়েন্ট রয়েছে। ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-১৪-র আওতায় ঝোড়ো অফারে ওয়ালটন ফ্রিজার কিনে ক্রেতারা পেতে পারেন ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত নিশ্চিত ক্যাশব্যাক। পাশাপাশি রয়েছে বিনা মূল্যে ওয়ালটনের বিভিন্ন পণ্য জিতে নেওয়ার সুযোগ। দেশের যেকোনো ওয়ালটন প্লাজা, পরিবেশক শোরুম কিংবা অনলাইনের ই-প্লাজা থেকে ফ্রিজার কেনার ক্ষেত্রে এসব সুবিধা মিলছে।

ট্রান্সটেক

ট্রান্সটেকের ১৬২ লিটার ফ্রিজারের দাম ২৮ হাজার ৫০০ টাকা। ২১২ লিটারের দাম ৩২ হাজার টাকা। ২৫২ লিটারের দাম ৩২ হাজার ৫০০ টাকা। ২৫২ লিটারের আরেকটি মডেলের ডিপ ফ্রিজ পেয়ে যাবেন ৩৩ হাজার টাকায়। ২৬২ লিটারের ফ্রিজারের দাম ৩৭ হাজার ৫০০ টাকা। আর ৩১২ লিটারের দাম ৪১ হাজার ৫০০ টাকা।

প্যানাসনিক

প্যানাসনিকের ১৪২ লিটার ডিপ ফ্রিজের দাম ২৯ হাজার ৪০০ টাকা। ১৪৮ লিটারের দাম ৩৮ হাজার টাকা। ২৫২ লিটারের দাম ৩২ হাজার ৫০০ টাকা। ২৫২ লিটারের আরেকটি মডেলের দাম ৩৩ হাজার টাকা। ২৯০ লিটার ডিপ ফ্রিজের দাম পড়বে ৪৮ হাজার ৪০০ টাকা।

ওয়ার্লপুল

ওয়ার্লপুলের ১৩৮ লিটারের ডিপ ফ্রিজটির দাম ৩৭ হাজার টাকা। ২১২ লিটারের দাম ৫৩ হাজার ৫০০ টাকা। ২৮৫ লিটারের দাম ৪৬ হাজার ৯০০ টাকা।

শার্প

শার্পের ১১৮ লিটারের ডিপ ফ্রিজের দাম ২২ হাজার ৯০০ টাকা। ১৬০ লিটার ডিপ ফ্রিজের দাম ২৮ হাজার ৫০০ টাকা। ১৬০ লিটারে আরেকটি মডেলের দাম ২৭ হাজার ৯০০ টাকা। ২২০ লিটারের দাম ৩৩ হাজার ৯০০ টাকা।

এলজি

এলজির ১৩৮ লিটার ডিপ ফ্রিজের দাম ৩৯ হাজার ৯০০ টাকা। ১৯০ লিটারের দাম ৪৪ হাজার ৫০০ টাকা। ১৯০ লিটারের আরেকটি মডেলের দাম ৪৬ হাজার ৯০০ টাকা।

সিঙ্গার

সিঙ্গারের ১৩৮ লিটারের ডিপ ফ্রিজের দাম ২৬ হাজার ৫৯০ টাকা। ১৬৪ লিটার ডিপ ফ্রিজের দাম ৪৩ হাজার ৩৯০ টাকা। ২১১ লিটারের দাম ৩৩ হাজার ১৯০ টাকা। ২৮৬ লিটারের দাম ৩৯ হাজার ২৯০ টাকা। ৩৮০ লিটারের দাম ৪৭ হাজার ৩৯০ টাকা।

ইলেক্ট্রা

ঈদ উপলক্ষে স্যামসাং ইলেক্ট্রা ডিপ ফ্রিজের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ২৫ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দেওয়া হচ্ছে। কালো ও কফি রঙের ১০০ লিটারের ইলেক্ট্রা ডিপ ফ্রিজটির দাম ২১ হাজার ৯০০ টাকা। ১৫৫ লিটারের দাম ২৮ হাজার ৯০০ টাকা। ১৬২ লিটারের ডার্ক গ্রে রংয়ের ডিপ ফ্রিজটি ২৮ হাজার ৯০০ টাকা। ২০০ লিটারের দাম ৩৪ হাজার ৯০০ টাকা। ২৬২ লিটারের একই রঙের ডিপ ফ্রিজটি এখন এক হাজার টাকা ছাড়ে ৪০ হাজার ৯০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। ৩১২ লিটারের ফ্রিজার ছাড়ের পর ৪৫ হাজার ৯০০ টাকা। ৫০০ লিটারের দাম দুই হাজার টাকা ছাড়ে ৬৫ হাজার ৯০০ টাকা।

গৃহসজ্জা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন