ঢেউ বানাও

রাতে দুই বেণি করে ঘুমাতে পারেন। সকালে চুল খুলে হালকা কোঁকড়া করে নিন কার্লারের সঙ্গে। এতে করে চুল এলোমেলো থাকলেও দেখতে খারাপ লাগবে না। অথবা চুল যখন আপনার কথা শুনছেই না, উল্টিয়ে খোঁপা করে রাখতে পারেন সকালে। ফ্রেঞ্চ বেণিও করতে পারেন। সারা দিন শেষে দাওয়াত থাকলে চুল খুলে ফেলুন। ঢেউখেলানো ভাব চলে আসবে।

চুলের মাস্ক

জিমে ঢোকার আগে চুলে মাস্ক লাগান। চুল বেণি বা একটি বানের মধ্যে মুড়ে নিন। ব্যায়াম শেষে যখন চুল ধুয়ে ফেলবেন, মসৃণ ভাব চলে আসবে। যেভাবে ইচ্ছা, সেভাবেই স্টাইল করতে পারবেন। চুল বেশি উষ্কখুষ্ক হয়ে থাকলে লিভ ইন কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন।

স্কার্ফে, ক্লিপে, রাবারব্যান্ডে চুল বাঁধুন

চুলে শ্যাম্পু করার পরও যেদিন তেলতেলে ভাব যায় না, সেদিন চুল বেঁধে রাখতে পারেন স্কার্ফ বা রুমাল দিয়ে। সামনের চুলগুলোকে পেঁচিয়ে টুইস্ট করে নিতে পারেন বা স্কার্ফটাকে ভাঁজ করে ব্যান্ডানার মতো চুলের সামনের দিকে বেঁধে নিতে পারেন। এ ছাড়া পুরো চুল নিয়ে ঝুঁটি করে ফেলতে পারেন। হেয়ার ক্লিপ ব্যবহার করতে পারেন। চুল তেলতেলে বা উষ্কখুষ্ক—যে অবস্থাতেই থাকুক, টানটানভাবে বেঁধে ফেললে সমস্যার অনেকখানি সমাধান পেয়ে যাবেন।