গুড়ে বানানো খাবার

শীত মানেই নতুন গুড়ে বানানো খাবারের বিশাল আয়োজন। চারদিকে এখন আখের নতুন গুড় যেমন পাওয়া যাচ্ছে তেমনি পাওয়া যাচ্ছে খেজুরের নতুন গুড়। গুড় দিয়ে তো পিঠাপুলি বানানো হয়ই, এবার না হয় একটু অন্যরকম কিছু হোক। রেসিপি দিয়েছেন কল্পনা রহমান

দুধ-লাউয়ের ককটেল

default-image

উপকরণ

লাউ কুচি করা ১ কাপ, সাদা রসগোল্লা আধা কেজি, কলা ২টা, দুধ দেড় লিটার, আপেল ২টা, খেজুর গুড় ১ কাপ, পেস্তা বাদাম কুচি ২ টেবিল চামচ, চায়না গ্রাস ১ মুঠ, কিশমিশ ২ টেবিল চামচ, স্ট্রবেরি জেলো ২ টেবিল চামচ, ঘি ২ টেবিল চামচ।

প্রণালি

default-image

লাউ সেদ্ধ করে পানি ঝরিয়ে ২ টেবিল চামচ ঘি দিয়ে ২-৩ মিনিট ভেজে রাখুন। ১ কাপ খেজুরের গুড় দিয়ে দুধ জ্বাল দিয়ে ঘন করে ২ কাপের মতো করে নিন। চায়না গ্রাস ১ কাপ পানি দিয়ে ১৫ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। এরপর পানিসহ মৃদু আঁচে চুলায় রেখে গলিয়ে নিন। এবার জেলো দিয়ে গুলে একটি কাপে রেখে জমিয়ে নিন। কলা ও আপেল কিউব করে কেটে ১ টেবিল চামচ চিনি দিয়ে মাখিয়ে রাখুন। এবার পরিবেশন পাত্রে কলা, আপেল, লাউ, পেস্তা বাদাম কুচি ও কিশমিশ পর্যায়ক্রমে সাজিয়ে নিন। তাতে রসগোল্লার রস ঝরিয়ে ভেঙে ভেঙে দিন। সব শেষে ঘন দুধ ঢেলে হালকাভাবে নেড়ে দিন। জমানো জেলো কুচি করে দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

বিজ্ঞাপন

রঙিন পুডিং

default-image

উপকরণ

ডিম ৪টা, পানি আড়াই কাপ, গুঁড়া দুধ দেড় কাপ, ভ্যানিলা এসেন্স আধা চা-চামচ, খেজুরের গুড় কুচি করা আধা কাপ, চায়না গ্রাস ২ টেবিল চামচ, স্ট্রবেরি জেলো ১ প্যাকেট, ক্যারামেলের জন্য চিনি ৩ টেবিল চামচ, ঘি ১ টেবিল চামচ।

প্রণালি

default-image

সসপ্যানে ৩ টেবিল চামচ চিনি ও ১ টেবিল চামচ পানি দিয়ে ক্যারামেল করে নিন। ঠান্ডা করে ১ টেবিল চামচ ঘি দিয়ে ব্রাশ করে রাখুন। চায়না গ্রাস ও জেলো বাদে সব উপকরণ একসঙ্গে ব্লেন্ড করে পুডিংয়ের সসপ্যানে ঢেলে দিন। ডবল বয়লারে ৩০ মিনিট ভাপ দিয়ে তারপর ঠান্ডা করে নিন। চায়না গ্রাস ২ কাপ গরম পানিতে তাওয়ার ওপর রেখে গুলিয়ে নিন। তাতে জেলো পাউডার দিয়ে নাড়ুন। এটি একটু ঠান্ডা করে ঠান্ডা পুডিংয়ের ওপর ঢেলে দিন। জেলো জমে গেলে উল্টিয়ে পরিবেশন করুন।

গুড়ের রেড ভেলভেট চিজ কেক

default-image

উপকরণ

ডিম ৩টা, ক্রিম চিজ ২০০ গ্রাম, ময়দা ১ কাপ, চিনি আধা কাপ, লাল ফুড কালার ১ চা-চামচ, কোকো পাউডার পৌনে এক কাপ, কোরানো গুড় ১ কাপ, ভ্যানিলা এসেন্স এক চা-চামচ, মাখন ২০০ গ্রাম, ভিনেগার আধা চা-চামচ।

প্রণালি

default-image

মাখন ও গুড় বিট করে তাতে ২টি ডিম ও সামান্য ভ্যানিলা এসেন্স দিয়ে বিট করে নিন। তারপর ভিনেগার ও লাল রং দিয়ে আবার বিট করুন। এবার স্লো বিটার দিয়ে ময়দা ও কোকো পাউডার মেশান। ৮ বাই ৮ ইঞ্চি কেক প্যানে ফয়েল বিছিয়ে এই কেকের ডো ঢেলে দিন। অল্প কেকের ডো আলাদা করে অন্য পাত্রে রাখুন। এখন ক্রিম চিজ ও চিনি হ্যান্ড বিটার দিয়ে অল্প বিট করে ১টি ডিম ও বাকি ভ্যানিলা এসেন্স দিয়ে বিট করে নিন। কেকের ডো-এর ওপর ক্রিম চিজের মিশ্রণ আলতোভাবে বিছিয়ে দিন। এর ওপর তুলে রাখা কেকের ডো চামচ দিয়ে ৬-৭ ফোঁটা ঢালুন। চামচ দিয়ে হালকাভাবে নেড়ে নিন। সুন্দর নকশা হবে। খেয়াল রাখতে হবে যেন পুরোপুরি মিশে না যায়। সবশেষে ওভেনে ১৬০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপে ২৫-৩০ মিনিট বেক করে ঠান্ডা করে পরিবেশন করুন।

বিজ্ঞাপন

গুড়ের শাহি পিঠা

default-image

উপকরণ

পটেটো ফ্লেকস ১ কাপ, পানি ১ কাপ (পটেটো ফ্লেকসের জন্য), ময়দা ১ কাপ, নারকেল কোরানো পৌনে এক কাপ, পানি ১ কাপ (ময়দার খামিরের জন্য) খেজুরের গুড় ২ কাপ, তেল ভাজার জন্য প্রয়োজনমতো, পানি (শিরার জন্য) ২ কাপ, এলাচি ২টি, ঘি ১ টেবিল চামচ, লবণ ১ চা-চামচ।

প্রণালি

default-image

গুড়, ২ কাপ পানি ও এলাচি চুলায় দিয়ে ফুটিয়ে শিরা বানিয়ে ১ টেবিল চামচ ঘি দিয়ে নামিয়ে ঠান্ডা করে নিন। ১ কাপ পানি ও লবণ দিয়ে ফুটিয়ে তাতে ময়দা দিয়ে সেদ্ধ করে খামির বানিয়ে নিন। পটেটো ফ্লেকস পানি দিয়ে মাখিয়ে নিন। এবার সেদ্ধ ময়দা, নারকেল কোরা ও ঘি দিয়ে খুব ভালোভাবে মাখিয়ে নিন। কয়েক ভাগ করে তা দিয়ে আধা ইঞ্চি পুরু করে রুটি বেলে নিন। পছন্দমতো ছাঁচ দিয়ে কেটে ছুরি দিয়ে ওপরে নকশা করে নিতে পারেন। সবশেষে ডুবো তেলে বাদামি করে ভেজে ঠান্ডা শিরাতে ২-৩ মিনিট রেখে তুলে নিয়ে পরিবেশন করুন।

মালাই চপ

default-image

উপকরণ

গুঁড়া দুধ ১ কাপ, বেকিং পাউডার ১ চা-চামচ, তরল দুধ ১ লিটার, ঘন দুধ ১ কাপ, ময়দা ২ টেবিল চামচ, চিনি পৌনে এক কাপ, ঘি ২ টেবিল চামচ, নতুন খেজুরের গুড় আধা কাপ, ডিম ১টা।

প্রণালি

default-image

আধা কাপ চিনি দিয়ে তরল দুধ জ্বাল দিন। ঘন করে ১ কাপ করে নিন। গুঁড়া দুধ, বেকিং পাউডার, ময়দা ও ঘি দিয়ে ময়ান করে ডিম দিয়ে ডো বানিয়ে কয়েক ভাগ করে মিষ্টি বানিয়ে নিন। নতুন গুড় দিয়ে শিরা বানিয়ে নিন। এবার চুলাতে ঘন দুধ ও গুড়ের শিরাতে মিষ্টি ছেড়ে ১৫ মিনিট ঢাকনা দিয়ে জ্বাল দিন। মিষ্টি সেদ্ধ হয়ে গেলে নামিয়ে ঠান্ডা হলে পরিবেশন করুন।

রসনা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন