default-image

শীতের এই সময়টাতে কমলা ছাড়া কি চলে? বাজারে দেশি-বিদেশি কমলার ছড়াছড়ি। কমলার ভালো দিক হলো, প্রচুর ভিটামিন ও পুষ্টিগুণ থাকলেও এতে চিনি বা শর্করা কম। তাই ডায়াবেটিক বা স্থূল রোগীরাও খেতে পারবেন।
কমলায় খুব বেশি ক্যালরি নেই। একটা মাঝারি আকারের কমলায় প্রায় ৬২ ক্যালরি শক্তি পাওয়া যাবে। কিন্তু এতে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি। এ ছাড়া আছে ভিটামিন এ এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। কমলায় পেকটিনের পরিমাণ বেশ ভালো। আর পেকটিন হলো আঁশ। এটি তাই কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সাহায্য করে, পেট ভরায় ওজন না বাড়িয়ে। কমলার আঁশটুকু ভালো করে পেতে হলে কেবল রস না খেয়ে বরং এর কোষের ওপরকার আবরণ ও সুতার মতো জিনিসগুলোসহ খেতে হবে। একটা কমলার ৯০ শতাংশের বেশি হলো ভিটামিন সি, আঁশের পরিমাণ প্রায় ১৫ শতাংশ। আর সব টক ফলের মতো কমলায়ও ক্যানসার প্রতিরোধী ফাইটোনিউট্রিয়েন্ট বিদ্যমান। এ ছাড়া এতে আছে পটাশিয়াম ও ক্যালসিয়াম। পটশিয়াম থাকার কারণে কিডনি রোগীরা কয়টি কমলা এক দিনে খেতে পারবেন, তা চিকিৎসককে জিজ্ঞেস করে নিন। নয়তো এই সময়ে তাজা কমলার স্বাদ পেতে প্রতিদিনই খেতে থাকুন এ মজাদার ফল। সূত্র: নিউট্রিশন ডটকম|

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0