রিতেশ ও জেনেলিয়া কয়েক বছর ধরে ছিলেন ভেজিটেরিয়ান। তবে দুধ ও দুগ্ধজাত খাবার—ছানা, পনির, ঘি খেতেন। পাঁচ বছর হলো তাঁরা এগুলোও ছেড়ে সম্পূর্ণ ভেগান জীবনযাপন করছেন। কেবল রিতেশ ও জেনেলিয়াই নন, তাঁদের দুই শিশুসন্তান রিয়ান (৭) ও রাহুলও (৬) ভেগান। খাদ্যাভ্যাস, পুষ্টি নিয়ে দীর্ঘসময় পড়াশোনা করেছেন জেনেলিয়া। বলিউড বাবলকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জেনেলিয়া বলেন, ‘প্রাণিজ প্রোটিন থেকে উদ্ভিজ্জ প্রোটিন শরীরের জন্য অনেক ভালো। সুস্থ ও সজীব রাখতে সাহায্য করে। বুড়িয়ে যাওয়ার গতি কমে আসে। আমার দুজন খাদ্যাভ্যাস বদলের আগে রক্ত পরীক্ষা করি। ছয় মাস পর আবার রক্ত পরীক্ষা করি। সেখানে অপূর্ব ফল পেয়েছি। এ ছাড়া প্রাণীর প্রতি বর্বরতা আর কার্বন ফুটপ্রিন্ট কমাতেও ভেগান খাদ্যাভ্যাসের কোনো তুলনা নেই।’

রিতেশ জানান, নন–ভেজ থেকে ভেজিটেরিয়ান হওয়া আবার ভেজিটেরিয়ান থেকে ভেগান হওয়ার যাত্রা খুব একটা কঠিন নয়। কেননা, এখন ভেগান খাদ্যাভ্যাসে প্রায় সবকিছুরই বিকল্প পাওয়া যায়। উদ্ভিজ্জ তেল, দুধ, ছানা, মিষ্টি, পনির—এগুলো হাতের কাছে খুঁজলেই পাওয়া যায়। একবার এ খাদ্যাভ্যাসে অভ্যস্ত হয়ে গেলে নাকি ওই ব্যক্তি নিজেই তাঁর ভেতরকার ইতিবাচক পরিবর্তন টের পাবেন।

এক বছরের সফলতায় সম্প্রতি ইমাজিন মিটস চুক্তি করেছে মার্কিন মাল্টিন্যাশনাল ফুড চেইন স্টারবাকসের সঙ্গে। বিখ্যাত এ কফিশপের ভারতীয় দোকানগুলোয় এখন থেকে পাওয়া যাবে উদ্ভিজ্জ ‘মিল্ক কফি’ ও নানা উদ্ভিজ্জ নাশতা। সেগুলো সরবরাহ করবে ইমাজিন মিটস।