এমন সিদ্ধান্তে প্রিন্স অ্যান্ড্রু ও সারার দুই কন্যা বিয়েট্রিস ও ইউজেনি যারপরনাই খুশি। তাঁরা ইতিমধ্যে মুইকের নতুন নাম দিয়েছেন—ফার্গুস। এখন থেকে মুইক কেবল ফার্গুস নামেই পরিচিতি পাবে। ফার্গুস রানির এক মামার নাম, যিনি প্রথম বিশ্বযুদ্ধে নিজ দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে মারা যান। প্রিন্স ফিলিপ যখন অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন, সেই সময় রানির মনোবল বাড়ানোর জন্য এই নতুন নামকরণ হয়েছিল। রানির ড্রেসার, ব্যক্তিগত সহকারী ও দীর্ঘ সময়ের বন্ধু অ্যাঞ্জেলা কেলি জানান, এই কুকুরগুলো রানির মুখে হাসি ফোটাতে পারত।

default-image

১৯৪৪ সাল থেকে কুকুর পালতে শুরু করেন রানি। ১৮তম জন্মদিনে বাবা চতুর্থ জর্জের কাছ থেকে একটি কর্গি জাতের কুকুর উপহার পেয়েছিলেন। সেই শুরু। রানির কুকুরগুলোর দেখভালের জন্য একটা বড় দল আছে। কুকুরগুলোর মনের কথা বোঝার জন্য আছে পশুমনোবিদ। কুকুরগুলোকে রাজকীয় আদবকেতা শেখানোর জন্য আছে বিহেভেরিয়াল থেরাপিস্ট। আছে বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত বাবুর্চি। রানির পোষা কুকুরকে খাওয়ানো হয় স্টেক, খরগোশের রোস্ট, চিকেন। আর এই খাবারগুলো পরিবেশন করা হয় নকশা করা অভিজাত রুপার থালায়। সেগুলোর চিকিৎসার জন্যও সার্বক্ষণিকভাবে নিয়োজিত আছে চিকিৎসকদের একটি দল।

সম্পর্ক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন