৩. শুধু ব্যবসায় শিক্ষায় পড়লেই বিবিএতে ভালো করা যায়

default-image

অনেকেই মনে করেন, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে ব্যবসায় শিক্ষা না পড়লে বিবিএতে ভালো করা যায় না। একেবারেই ভুল। বিবিএর শিক্ষার্থীদের নানা ধরনের বিষয়ে পড়তে হয়, জানতে হয়। অর্থনীতি, গণিত, যোগাযোগ, ব্যবসাসংক্রান্ত আইন, পরিসংখ্যান, আন্তর্জাতিক ব্যবসা, ইত্যাদি এর পাঠ্যক্রমের অংশ। বিপণন নিয়ে পড়তে গেলে মনোবিজ্ঞানের ধারণা নিতে হয়। অ্যাকাউন্টিং শিক্ষায় ব্যবসার কৌশল সম্পর্কে জানতে হয়। তাই ব্যবসায় শিক্ষার ছাত্রদের যেমন অনেক নতুন বিষয়ের সঙ্গে পরিচয় হয়, তেমনি বিজ্ঞানের ছাত্ররাও নতুন কিছু জানতে পারেন। যাঁরা বিজ্ঞানে পড়েছেন, তাঁরা বিবিএ পড়ার ক্ষেত্রে তেমন কোনো সমস্যায় পড়েন না। মানবিকের শিক্ষার্থীদের জন্যও একই কথা প্রযোজ্য। শিক্ষার্থীর দক্ষতার ওপরই আসলে ভালো ফল নির্ভর করে।

৪. বিবিএ পড়ে অন্য কোনো বিষয়ে উচ্চতর শিক্ষার সুযোগ নেই

default-image

যাঁরা বিবিএ পড়েন, তাঁরা পরে বিভিন্ন বিষয়ে মাস্টার্স, এমবিএ বা পিএইচডি করার সুযোগ পাচ্ছেন। বিবিএর সঙ্গে বহুমাত্রিক বিষয়ের সংশ্লিষ্টতা থাকে। ব্যবসায় প্রশাসনে স্নাতক করে আপনি চার্টার্ড অ্যাকাউন্টেন্সি (সিএ) পড়তে পারেন। ইদানীং উন্নয়ন অধ্যয়ন, সমাজকল্যাণসহ নানা বিষয়ে পড়তে আগ্রহী হচ্ছেন বিবিএর শিক্ষার্থীরা। বিবিএ পড়ে এমবিএ থেকে শুরু করে মাস্টার্স ও পিএইচডি পর্যায়ে বিদেশে পড়ার অনেক সুযোগ আছে। বাংলাদেশ থেকে প্রতিবছর অনেক শিক্ষার্থী ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়ায় বিভিন্ন বিষয়ে বৃত্তি নিয়ে পড়তে যাচ্ছেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফুলব্রাইট স্কলারশিপ, যুক্তরাজ্যে চিভনিং বৃত্তিসহ নানা দেশের সরকারি ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের বৃত্তির জন্য বিবিএর শিক্ষার্থীরা মনোনীত হচ্ছেন।

৫. বিবিএর পড়াশোনায় কম্পিউটার দক্ষতা বা গণিতের কাজ নেই

default-image

প্রতিনিয়তই পরিবর্তন হচ্ছে পড়াশোনার গতিপ্রকৃতি। একজন বিবিএ গ্র্যাজুয়েটকে মাইক্রোসফট এক্সেল সম্পর্কে যেমন জানতে হয়, তেমনি পরিসংখ্যান ও ব্যবসাসংক্রান্ত বিভিন্ন সফটওয়্যারের কাজ শিখতে হয়। পরিসংখ্যানসংক্রান্ত প্রোগ্রামিং সফটওয়্যার—আর, স্ট্যাটাসহ মাইক্রোসফট অফিসের বিভিন্ন সফটওয়্যার, যেমন এমএস ওয়ার্ড, এমএস পাওয়ার পয়েন্ট সম্পর্কে জানতে হয়। পরিসংখ্যান ও গণিতের বিভিন্ন মৌলিক জ্ঞান একজন বিবিএ শিক্ষার্থীকে এগিয়ে রাখে। অতএব গণিত ও প্রযুক্তিতে দক্ষতা বিবিএর পড়ার জন্য জরুরি।

৬. বিবিএ পড়া শেষ করেই এমবিএ করা জরুরি

default-image

বিবিএ পড়া শেষ করে এমবিএ ডিগ্রি নিতেই হবে, এমন কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। যাঁরা উচ্চশিক্ষার সুযোগ নিতে চান, তাঁদের জন্য এমবিএ দারুণ একটি সুযোগ। আবার যাঁরা স্নাতক পর্যায়ে ব্যবসায় শিক্ষায় পড়ার সুযোগ পাননি, তাঁদের জন্যও এমবিএ ব্যবসায়সংক্রান্ত কৌশল শিখতে পেশাদার ডিগ্রি হিসেবে সারা বিশ্বেই জনপ্রিয়। এমবিএ ডিগ্রির প্রয়োজনীয়তা নির্ভর করছে শিক্ষার্থীর পেশাগত আগ্রহের ওপর।

জীবনযাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন