বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সব ধরণের বাদামের দামও বাড়তি। প্রতি কেজি কাঠবাদামের দাম ৭০০ থেকে ৮২০ টাকা। কাজু বাদামের দাম ৮২০ থেকে ৮৫০ টাকায়ও বিক্রি হচ্ছে। গোল মরিচ পাইকারিতে কিনতে হচ্ছে ৬৫০ টাকা থেকে ৭৭০ টাকা পর্যন্ত। আর জায়ফল ১ হাজার ১৫০ থেকে ১ হাজার ৬৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

রামপুরা বাজারের মশলা বিক্রেতা হান্নান সরকার বলেন, দাম বাড়েনি এমন একটা জিনিসও বাজারে নেই। আর মশলার দাম তুলনামূলক বেশি বেড়েছে। হলুদগুড়ো প্রতিকেজি কিনতে পাবেন ২২০ থেকে ৩৪৫ টাকার মধ্যে। আর মরিচ গুড়োর দাম ২৫০ থেকে ৩২০ টাকা। আদা ১৫০ থেকে ২২০ টাকা। ধনিয়ার গুড়ো ১৫০ টাকা থেকে ৩২০ টাকা কেজি। দেশি আদার কেজি বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১৩০ টাকা। আমদানি করা আদা বিক্রি হচ্ছে ১৩০ থেকে ১৮৫ টাকা। শুকনা মরিচের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪২০ থেকে ৫৩৫ টাকা। দেশি রসুনের কেজি ৬৫ থেকে ১০৫ টাকা। আর আমদানি করা রসুনের কেজি ৯৫ থেকে ১৮৫ টাকা। দেশি পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছে ২৫ থেকে ৩৫ টাকা।

কেনাকাটা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন