বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সামান্থার ঘাড়ে নাগার স্বাক্ষর


দক্ষিণের জনপ্রিয় নায়িকাদের মধ্যে সামান্থা অন্যতম। ‘দ্য ফ্যামিলি ম্যান টু’ সিরিজের পর তাঁর খ্যাতি সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে। দক্ষিণি সুপারস্টার নাগার্জুনের পুত্রবধূ সামান্থা। ট্যাটুর ব্যাপারে অত্যন্ত শৌখিন তিনি। এ ব্যাপারে দক্ষিণি নায়িকাদের মধ্যে শীর্ষে আছেন তিনি।

default-image

সামান্থার ডান হাতের কবজিতে ‘বাইকিং’ চিহ্ন এঁকেছেন। তাঁর স্বামী অভিনেতা নাগা চৈতন্যও একই রকম ট্যাটু বানিয়েছেন। এই চিহ্নের পেছনে আসল রহস্য হলো নিজের পরিচয়কে স্বতন্ত্রতা দেওয়া, ব্যক্তিত্বকে আরও শক্তিশালী করা। এ ছাড়া সামান্থা নিজের ঘাড়ে ‘ওয়াইএমসি’ আর নাগার স্বাক্ষরের ট্যাটু বানিয়েছেন।

default-image

ট্যাটুর প্রতি শ্রুতির প্রেম  


কমল হাসান কন্যা শ্রুতি হাসানের অনুরাগী দক্ষিণি ইন্ডাস্ট্রি ছাড়িয়ে বলিউডেও পৌঁছে গেছে। তাঁর ফ্যাশন স্টেটমেন্ট হামেশাই সবাইকে মুগ্ধ করে। শ্রুতির ট্যাটুপ্রেম দক্ষিণে অত্যন্ত চর্চিত। একটা-দুটো নয়, তাঁর শরীরে পাঁচ পাঁচটা ট্যাটু আছে।

default-image

প্রথমটা শ্রুতির কবজিতে আর দ্বিতীয়টা পায়ে এঁকেছেন। তৃতীয় ট্যাটুটা এই দক্ষিণি নায়িকার পিঠে দেখা যায়। চতুর্থ ট্যাটু তিনি করিয়েছেন কানের পেছনে। শ্রুতি মিউজিকের চিহ্ন এঁকেছেন তার চতুর্থ ট্যাটুতে। আর পঞ্চম ট্যাটুটা তিনি হাত এবং কাঁধের কাছে বানিয়েছেন।

default-image

রাশমিকা মান্দানা ‘ইররিপ্লেসেবল’


ট্যাটু করানো দক্ষিণি নায়িকার তালিকায় রাশমিকার নামও আছে। তাঁর ভক্তের সংখ্যা ক্রমশ বেড়েই চলেছে। রাশমিকা তাঁর ডান হাতের ট্যাটুতে লিখেছেন ‘ইররিপ্লেসেবল’, অর্থাৎ ‘যা বদলানো যায় না’।

তৃষা কৃষ্ণানের শরীরে প্রিয় মাছ!


তৃষা কৃষ্ণান দক্ষিণের জনপ্রিয় নায়িকা। তিনি অক্ষয় কুমারের সঙ্গে বলিউডের ‘খাট্টা মিঠা’ ছবিতে কাজ করেছেন। এই দক্ষিণি নায়িকাও ট্যাটু করাতে পছন্দ করেন। তৃষার শরীরে একাধিক ট্যাটু আছে। তবে একটা ট্যাটু একেবারেই অন্য রকম। সেখানে তিনি তাঁর প্রিয় কার্টুন ‘ফাইন্ডিং নেমো’র মাছের ডিজাইন এঁকেছেন। এ ছাড়া তৃষার কাঁধে আর কবজিতেও ট্যাটু আছে।

default-image

‘ড্যাডি’জ গার্ল’ প্রিয়ামণি


প্রিয়ামণির খ্যাতি এখন দক্ষিণের সীমানা ছাড়িয়ে সারা ভারতে ছড়িয়ে পড়েছে। ‘দ্য ফ্যামিলি ম্যান’ সিরিজের পর এই দক্ষিণি নায়িকার নাম সবার মুখে মুখে। প্রিয়ামণির ট্যাটুপ্রীতির কথা কারও অজানা নয়৷ এই দক্ষিণি তারকা তাঁর বাবার অত্যন্ত আদরের, তা-ও আর কারও অজানা নয়। কারণ, প্রিয়ামণি তাঁর হাতের কবজিতে লিখেছেন ‘ড্যাডি’জ গার্ল’।

default-image

‘প্রভুদেবা’ থেকে ‘পজিটিভিটি’ নিয়েছেন নয়নতারা


দক্ষিণের জনপ্রিয় নায়িকাদের মধ্যে একজন নয়নতারা। কোরিওগ্রাফার প্রভুদেবার সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে তিনি আলোচনায় উঠে আসতেন। তবে সেই প্রেম এখন ভেঙে খান খান। নয়নতারার কবজিতে ‘প্রভুদেবা’ নামের ট্যাটু ছিল। তবে তিনি তা মুছেও ফেলেননি। এটাকে বদলে ‘পজিটিভিটি’ লিখেছেন। অর্থাৎ, ভেঙে যাওয়া সম্পর্ক থেকে ইতিবাচকতা নিয়েছেন তিনি। পুরো বিষয়টাকে দেখছেন ইতিবাচকভাবে।

default-image
স্টাইল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন