সাধারণত, সকালের ফ্লাইটে গেলে গন্তব্যে পৌঁছে বেশি সময় পাওয়া যায়। এখানে আবার বাজেটেরও বিষয় আছে। সাধ্যের মধ্যে পছন্দের ফ্লাইট খুঁজে পাওয়াটা মাঝেমধ্যে বেশ দুরূহ হয়ে দাঁড়ায়। অনেক সময় বাজেটের মধ্যে ফ্লাইট না পেলে স্থগিত করতে হয় সম্পূর্ণ পরিকল্পনাই। সময়সহ বিভিন্ন ফ্লাইটের দামের মধ্যে তুলনা করে ফ্লাইট বুক করার সুবিধাটা পেয়ে যাবেন ‘গোযায়ান’-এ। তা ছাড়া এককালীন টাকা পরিশোধের চাপ কমাতে এখন আছে তাদের শূন্য শতাংশ ইএমআই-সুবিধা। এটি ব্যবহার করে কোনো বাড়তি খরচ ছাড়াই এখন ফ্লাইটের সুবিধা নিয়ে টাকা পরিশোধ করতে পারবেন প্রয়োজনমতো সময় নিয়ে। বর্তমানে বাংলাদেশে গোযায়ানই একমাত্র অনলাইন ভ্রমণবিষয়ক প্ল্যাটফর্ম, যেখানে ফ্লাইটের ক্ষেত্রে শূন্য শতাংশ ইএমআই-সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে।

দূরপাল্লার ফ্লাইটগুলোয় দরকার পড়ে কিছু বাড়তি নিরাপত্তারও। কারণ, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া ইত্যাদি গন্তব্যে যাওয়ার সময় সাধারণত অন্য কোনো দেশে যাত্রাবিরতি থাকে। ফ্লাইটের দৈর্ঘ্য এ ক্ষেত্রে কখনো এক দিনেরও বেশি সময় পার হয়ে যায়। ফ্লাইট পরিবর্তনে দুবার লাগেজ হস্তান্তরের কারণে এখানে লাগেজ হারিয়ে যাওয়া বা ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়। এ সমস্যার সমাধান করতে এখন গোযায়ানে আছে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো লাগেজ সুরক্ষাসেবা। এ সেবা ব্যবহার করে খুবই কম খরচে যেকোনো হারানো লাগেজে ৬৬ হাজার টাকা পর্যন্ত ক্ষতিপূরণ পাওয়া যায়। তা ছাড়া এখানে প্রকৃত সময়ে লাগেজ ট্র্যাকিংয়ের সুবিধাও আছে, ফলে আপনি থাকতে পারবেন চিন্তামুক্ত।

নান্দনিক ভ্রমণের জন্য এখন সবচেয়ে জনপ্রিয় স্থানগুলো হলো মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, নেপাল, ভারত ইত্যাদি। বেশি বাজেটের মধ্যে আবার অনেকেই ঘুরে আসছেন তুরস্ক, দুবাই, সিঙ্গাপুর ইত্যাদি দেশ। ভ্রমণের সময় বাজেটের মধ্যে চলা আবার বিলাসবহুলভাবে থাকা—সবই সম্ভব। তবে বাংলাদেশ থেকে হোটেল বুকিংয়ের ক্ষেত্রে অনেক সময়ই বাক্সবন্দী প্যাকেজের মধ্যে আটকে যেতে হয়। অফলাইনে হোটেল বুকিং করতে গেলে নামমাত্র কয়েকটি বিকল্প পাওয়া যায়, যা হয়তো ভ্রমণকারীর পছন্দমতো না। তা ছাড়া হোটেলের অবস্থান, শহরের কেন্দ্র থেকে দূরত্ব, খাবারের ব্যবস্থা, রুমের ছবি ইত্যাদি সুযোগ-সুবিধা অফলাইনে পাওয়া সম্ভব নয়। অনলাইনে বুকিংয়ের ক্ষেত্রে বিদেশি ওয়েবসাইট ছাড়া আগে কোনো পন্থা ছিল না।

তবে এখানে পেমেন্টের ক্ষেত্রে বিদেশি ক্রেডিট কার্ড অথবা ডলার এন্ডরর্সমেন্ট প্রয়োজন, যা বেশির ভাগ বাংলাদেশি নাগরিকের কাছেই নেই। হোটেলে পৌঁছানোর পর পেমেন্ট করার ক্ষেত্রেও দুবার মুদ্রা পরিবর্তনের কারণে বেশ খানিকটা টাকা নষ্ট হয়। এই সমস্যা সমাধান করে বর্তমানে বিদেশি হোটেল বুকিংয়ের সবচেয়ে ভালো পন্থা নিয়ে এসেছে গোযায়ান। প্রায় ৭ লাখ নতুন হোটেল তাদের প্ল্যাটফর্মে আছে। আর এখানে পেমেন্ট করা সম্ভব সম্পূর্ণ বাংলাদেশি টাকায়, দেশে প্রচলিত যেকোনো পেমেন্ট মাধ্যম ব্যবহার করে। ফলে ভ্রমণের ব্যাপারটা হয়ে উঠেছে আগের থেকে অনেক বেশি সুবিধাজনক।

বিদেশ ভ্রমণের পরিকল্পনা এই শীতে আছে অনেকেরই। শীতের ভ্রমণটা যেন ঠিকঠাকভাবে সম্পন্ন হয়, তা নিশ্চিত করতে পরিকল্পনা শুরু করুন এখনই। ভ্রমণের পথে এখন আর কোনো বাধা নেই।