default-image

মা কোথায়

মশিউল আলম

প্রকাশক: প্রথমা প্রকাশন, ঢাকা, প্রকাশকাল: জানুয়ারি ২০২১, প্রচ্ছদ: নিয়াজ চৌধুরী, ৮৮ পৃষ্ঠা, দাম: ২২০ টাকা।

বইটি পাওয়া যাচ্ছে

prothoma.com এবং মানসম্মত বইয়ের দোকানগুলোয়।

এই রকম একটা কাহিনি মশিউল আলমের মা কোথায় উপন্যাসের মূল বিষয়। একটা ভীষণ রোমাঞ্চ-অভিজ্ঞতার ভেতর দিয়ে সম্মুখের এক অনাবিষ্কৃত জগতের খোঁজেই যেন এই উপন্যাস তৈরি হয়েছে। সেই অনাবিষ্কৃত জগতে মানিকের মা–ই কেবল নেই, আছে আরও নানান কিছু।

তবে কেবল যে এই একটা কাহিনি আর কাহিনিসম্পৃক্ত বিষয়ের মধ্যেই এই উপন্যাসের বিচার সম্ভব হবে—ব্যাপারটা এমন নয়। তাহলে কী করা যাবে? কেবল এই উপন্যাসের গভীর পাঠপ্রক্রিয়ার ভেতর দিয়েই সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। অর্থাৎ উপন্যাসটির বিষয় হিসেবে কেবল মাকেই খোঁজ করার বিষয়টা এককভাবে ঠিকঠাক থাকেনি শেষ পর্যন্ত। এরই সঙ্গে দৈশিক ও বৈশ্বিক নানান বিষয় একীভূত হয়েছে।

এই উপন্যাসের বিষয়, কাল আর চরিত্রের যে উপস্থাপন, তাতে করে সম্পূর্ণরূপে ভিন্ন আমেজই এনেছেন মশিউল আলম। বিশেষ করে এই উপন্যাসের চরিত্রায়ণপ্রক্রিয়া অনেকটাই মহাকাব্যিক উপন্যাস ইউলিসিস–এর কথা মনে করিয়ে দেয়। কিন্তু ‘আধুনিক উপন্যাসের’ মতো মগ্নচৈতন্যের ছাঁচের ভেতর দিয়ে তিনি উপন্যাসটির বয়ান জটিল করে তৈরি করেননি।

তিনি চরিত্র ব্যবহারের বেলায় একটা কৌশল হয়তোবা ব্যবহার করেছেন; এর মানে এই নয় যে বয়ান–প্রকল্প হিসেবে পেছনের সেই সব ফেলে আসা বিষয়কেই সামনে এনেছেন। কিন্তু চরিত্র ও চরিত্রের মাধ্যমে প্লট উপস্থাপনের বেলায় নিজস্ব কৌশলের মধ্যেই স্থির থেকেছেন। ফলে নিজ কৌশলের ভেতর দিয়ে মহাকাব্যিক প্লটে নয়, এক ক্ষুদ্র ক্যানভাসেই বৃহৎ বিষয় উপস্থাপন করেছেন লেখক।

জটিল একটা সময়ের ভেতরে মানিকের নানামাত্রিক চিত্র ঔপন্যাসিক স্পষ্ট করেছেন এই উপন্যাসে। মা কোথায় পড়ার মধ্য দিয়ে পাঠক বাংলা উপন্যাস পাঠের নতুন অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করবেন, আশা করা যায়।

সোহানুজ্জামান

বইপত্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন