default-image

আবদুল গাফফার

দ্য গড ইকুয়েশন

মিচিও কাকু

ভাষান্তর: আবুল বাসার

প্রকাশক: প্রথমা প্রকাশন, ঢাকা, প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি ২০২২, প্রচ্ছদ: মাহবুব রহমান, ২২৪ পৃষ্ঠা, দাম: ৩৪০ টাকা।

বইটি পাওয়া যাচ্ছে

prothoma.com এবং মানসম্মত বইয়ের দোকানগুলোয়।

যেটাকে কাকু ঈশ্বরের সমীকরণ বলছেন, কেমন হতে তার স্বরূপ? তারই সুলুক সন্ধান করতেই লিখেছেন এই বই—দ্য গড ইকুয়েশন। সার্বিক সেই সূত্রের সন্ধান করতে তিনি ঘেঁটেছেন পদার্থবিজ্ঞানের ইতিহাস। তারপর পেঁয়াজের খোসা ছাড়ানোর মতো করে একের পর এক উন্মোচন করেছেন ‘গড ইকুয়েশন’ হওয়ার সব কটি সম্ভাবনার দুয়ার। আইনস্টাইনের চেষ্টা ঠিক কোন পথে এগোচ্ছিল, তার সারসংক্ষেপ আলোচনা করে তৈরি করেছে সমন্বিত সমীকরণটির পথে এগোনোর ভিত্তিপ্রস্তর। তারপর আইনস্টাইনের মৃত্যুর পর ওই প্রচেষ্টা ঠিক কোনপথে বাঁক নিল, সেসবের তত্ত্বতালাশও করেছেন এই বইয়ে। দেখিয়েছেন ঠিক কতগুলো তত্ত্ব, সূত্র কিংবা সমীকরণ ‘থিওরি অব এভরিথিং’ হওয়ার পথে নিজেদের আত্মপ্রকাশ করেছে; কোনটার সম্ভাবনা ক্ষীণ, কোন কোন তত্ত্ব এখনো আশা বাঁচিয়ে রেখেছে আর কোন তত্ত্ব সবচেয়ে উজ্জ্বল দ্যুতি ছড়াচ্ছে।

মিচিও কাকু নিজে একজন স্ট্রিং তত্ত্ববিদ; আর থিওরি অব এভরিথিং হওয়ার দৌড়ে সবচেয়ে এগিয়ে আছে এই তত্ত্বই। তাই তাঁর জন্য ব্যাপারটা ব্যাখ্যা করা বেশ সহজ।

শুধু স্ট্রিং তত্ত্ব নয়, গড ইকুয়েশনের সন্ধান পেতে হলে যত সব সম্পূরক তত্ত্বের আবির্ভাব ঘটছে বা ঘটবে বলে বিজ্ঞানীরা ধারণা করছেন, তার সব কটির ব্যাখ্যা–বিশ্লেষণ করা হয়েছে এই বইয়ে। কোয়ান্টাম মহাকর্ষ, মাল্টিভার্স, প্যারালাল ইউনিভার্স থেকে শুরু করে উচ্চমাত্রার জগতে গভীরে ঢোকার চেষ্টা করেছেন কাকু।

মিচিও কাকুর লেখনী পাঠকবান্ধব, আবুল বাসারের সাবলীল অনুবাদে সেটা আরও আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে। বইয়ের শেষে অনুবাদক যোগ করছেন তথ্যনির্দেশ ও পরিভাষা। তাই ৮ থেকে ৮০—যেকোনো বয়সের বিজ্ঞানপ্রেমীর কাছে এই বই আধুনিক ও ভবিষ্যতের তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানকে গভীরভাবে জানার অন্যতম সহায়ক হতে পারে।

বইপত্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন